প্রতীকী ছবি

সিরাজগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুণীকে এক বছর ধরে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিরাম নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রবিবার তাকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে শনিবার রাতে ধর্ষণের শিকার তরুণীকে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তরুণী বলেন, প্রতিবেশী দুলাল রায়ের ছেলে শুভ রায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আমার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে। এরপর গত এক বছর ধরে আমাকে ধর্ষণ করেছে। এর মধ্যে বিয়ের জন্য চাপ সৃষ্টি করলে বার বার এড়িয়ে যায় শুভ। ১২ জুলাই বিকেলে আমাকে ফোনে ডেকে নিয়ে যায় শুভ।

এ সময় শুভর সঙ্গে তার কয়েকজন বন্ধু ছিল। তারা আমাকে একটি বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে শুভ আমাকে ধর্ষণ করে। ওই সময় আমার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে এসে শুভ ও আমাকে আটক করে। পরে আমাদের বিয়ে দেয়ার উদ্যোগ নেয় স্থানীয়রা। কিন্তু স্থানীয় লোকজনকে ম্যানেজ করে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় শুভ।

এদিকে, এ ঘটনায় স্থানীয় মাতব্বররা শনিবার বিকেলে বিষয়টি সমাধানের উদ্যোগ নেয়। কিন্তু শুভ ওই বৈঠকে উপস্থিত না হলে একাধিক ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে তরুণী। রাতে পরিবারের লোকজন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়।

শনিবার রাতে তরুণীর মা শুভকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাত আরও ৩-৪ জনকে আসামি করে সিরাজগঞ্জ সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। এ ঘটনায় বাড়ির মালিক অভিরামকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সিরাজগঞ্জ সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-অপারেশন) রফিকুল ইসলাম বলেন, যে বাড়িতে ঘটনাটি ঘটেছে ওই বাড়ির মালিক অভিরামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় তরুণীর মা শুভকে প্রধান করে অজ্ঞাত আরও ৩-৪ জনকে আসামি করে সিরাজগঞ্জ সদর থানায় মামলা করেছেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত আসামি শুভকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আজকের পত্রিকা/এমএআরএস