সিলেট জৈন্তাপুর উপজেলার রাজবাড়ি, প্রাচীণ মেগালিথিক পাথর সহ বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় ঐতিহাসিক সকল স্থাপনা সংস্কার ও সংরক্ষণ করে ইউনেস্কোর তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করার উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে।

সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের অধীনে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর চট্রোগ্রাম ও সিলেট বিভাগের আ লিক কার্যালয় এসব কাজ বাস্থবায়ন করতে মাঠ পর্যায়ে সরজমিনে পরিদর্শন করেছেন।

গত ১১ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর চট্রোগ্রাম ও সিলেট বিভাগের আ লিক পরিচালক ড. মো: আতাউর রহমানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল ঐতিহাসিক জৈন্তেশ্বরী বাড়ি ও সারীঘাট পান্থশালা পরিদর্শন করেন।

এসময় উপজেলা নিবার্হী অফিসার নাহিদা পারভীন সহ জৈন্তাপুর প্রেসক্লাবের সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, ৯ ফেব্রুয়ারি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) মো: হান্নান মিয়া’র সভাপতিত্বে বিশ্ব ঐতিহ্যের আপডেটিং টেন্টেটিভ লিস্ট বিষয়ক বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

এ বিষয়ে আ লিক পরিচালক ড. মো: আতাউর রহমান বলেন, এই সভায় জৈন্তাপুর উপজেলার ঐতিহাসিক সকল স্থাপনা ইউনেস্কোর তালিকাভূক্ত করতে আলোচনা করা হয়েছে।

তিনি আরোও বলেন, ঐতিহাসিক জৈন্তাপুর রাজবাড়ি ও মেগালিথিক পাথর স্থাপনাগুলো ঐতিহ্যগত গুরুত্ব বিবেচনায় বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হওয়ার দাবী রাখে। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় জৈন্তাপুর উপজেলার এসব প্রাচীণ পূরাকীর্তি খনন কাজ এবং সংস্কার ও সংরক্ষণ করতে পৃথক একটি প্রকল্প গ্রহন করতে যাচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নিবার্হী অফিসার নাহিদা পারভীন বলেন, জৈন্তাপুর উপজেলা সদর জুড়ে অনেক ঐতিহাসিক স্থাপনা ছড়িয়ে রয়েছে। এসব প্রাচীণ পূরাকীর্তি সংস্কার ও মেগালিথিক পাথর সংরক্ষণ করতে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরকে স্থানীয় প্রশাসন থেকে সব রকম সহযোগিতা করা হবে। তিনি ঐতিহাসিক স্থাপনা গুলো সংরক্ষণ ও সংস্কার কাজে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিগনের সহযোগিতা করার আহবান জানান।

নাজমুল ইসলাম/জৈন্তাপুর