ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) বিধায়ক রাজেশ মিশ্রার মেয়ে সাক্ষী মিশ্রা মন্দিরে গিয়ে নিয়ম মেনে এক ব্যক্তিকে বিয়ে করেন। কিন্তু নিচু জাতের ছেলেকে বিয়ে করায় তা মেনে নেননি বিধায়ক রাজেশ মিশ্রা। তাই এবার আদালতে গিয়ে বিয়ে করবেন এই দম্পতি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, সাক্ষী মিশ্রা ব্রাহ্মণ পরিবারের মেয়ে। তার স্বামী অজিতেশ কুমার একটি দলিত পরিবারের ছেলে। মন্দিরে গিয়ে পুরোহিতের মাধ্যমে তারা দুজন বিয়ে করেন। কিন্তু পরে ওই মন্দিরের পুরোহিত বিয়ে দেওয়ার কথা অস্বীকার করেন। এরপরই আইনিভাবে বিয়ের কথা মাথায় আসে ওই দম্পতির। এর আগে স্থানীয় মন্দিরে গিয়ে বিধান মেনে বিয়ে করার প্রমাণ আছে বলে দাবি করেন সাক্ষী মিশ্রা ও অজিতেশ কুমার দম্পতি। কিন্তু পরে ওই মন্দিরের পুরোহিত সেই বিয়ে দেওয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, ‘ওই প্রমাণপত্র জাল!’

একটি সূত্র বলছে, এরপরই ওই দম্পতি এলাহাবাদ হাইকোর্টে গিয়ে বিয়ের আবেদনের কথা চিন্তা করেন। তারা আগামী সোমবার আদালতে যেতে পারেন। আদালত তাদের আবেদনের শুনানি আগামী ১৫ জুলাই হতে পারে। এরপর তারা আগামী ১৬ জুলাই আদালতের সামনেই তাদের বিয়ে নিবন্ধন করবেন।

গত ৩ জুলাই থেকে সাক্ষী মিশ্রা ও তার স্বামী ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। পরে সাক্ষী মিশ্রা একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেন। যেখানে তিনি দাবি করেন, ভিনজাতের ছেলেকে বিয়ে করায় তার বিধায়ক বাবা ও দাদা মিলে তাদের পেছনে গুণ্ডা লেলিয়ে দিয়েছেন। এরপর তাদের প্রাণ বিপন্ন বলে পুলিশের কাছে নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করেন। কিন্তু পুলিশ প্রথমে তাদের আবেদন নিতে চায়নি।

পরে ঘটনাটি গণমাধ্যমে প্রকাশ পেলে পুলিশ কর্মকর্তা তাদের নিরাপত্তা দেওয়ার কথা জানান। এমনকি ওই দম্পতি যাতে আগামী সোমবার সুস্থভাবে আদালতে পৌঁছাতে পারেন, সে বিষয়ে নজর রাখবে পুলিশ প্রশাসন। সাক্ষী মিশ্রা বলেন, ‘আমরা যখন প্রথমে এসএসপি (পুলিশ প্রধান) স্যারের সঙ্গে দেখা করি, তখন তিনি সেভাবে সাড়া দেননি। কিন্তু আমরা এই ঘটনাকে সংবাদমাধ্যমকে জানানোর পরই তিনি আমাদের নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়ে কথা দিয়েছেন। আমরা এখন আর আতঙ্কের মধ্যে নেই। আমরা নিরাপদ বোধ করছি।

আজকের পত্রিকা/আরকে