মাহমুদ উল্লাহ্‌
বিজনেস করেসপন্ডেন্ট

বিজিএমইএ ও অ্যাকর্ডের মধ্যে সম্প্রতি স্বাক্ষরিত এক সমঝোতা স্মারকের ভিত্তিতে মহামান্য আদালত বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের নিরাপত্তা তদারকীতে নিয়োজিত ইউরোপের ক্রেতাদের জোট অ্যাকর্ড’কে ২৮১ দিনের অন্তবর্তীকালীন সময়ে কার্যক্রম পরিচালনার অনুমোদন দিয়েছে । গত ৮ মে ঢাকায় এ সমঝোতা স্মারকটি স্বাক্ষরিত হয়।

বাংলাদেশের পোশাকখাতে জাতীয় পর্যায়ে একটি পূর্নাঙ্গ ও স্বাধীন নিরাপত্তা বিষয়ক মনিটরিং ব্যবস্থার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে বিজিএমইএ একটি ‘আরএমজি সাসটেইনিবিলিটি কাউন্সিল (আরএসসি)’ গঠনের পরিকল্পনা করে, যাতে অ্যাকর্ড একমত হয়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, আরএসসি এর কার্যক্রম পরিচালিত হবে বিজিএমইএ/বিকেএমইএ, ব্রান্ড, এবং আন্তর্জাতিক এবং স্থানীয় ট্রেড ইউনিয়নগুলো দ্বারা। সেইসাথে অ্যাকর্ড এর অন্তবর্তীকালীন সময় সমাপ্তির সাথে সাথে আরএসসি অ্যাকর্ড এর অবকাঠামো, পরিচালনা পদ্ধতি এবং রিসোর্সেস বুঝে নিবে।

অন্তবর্তীকালীন সময়ে বিজিএমইএ অ্যাকর্ড এর ঢাকা অফিসে ‘বিজিএমইএ ইউনিট’ নামক একটি অপারেটিং ইউনিট প্রতিষ্ঠা করবে যাতে অ্যাকর্ড এর অন্তবর্তীকালীন কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হতে পারে। অন্তবর্তীকালীন প্রক্রিয়ার সহায়ক হিসেবে জেষ্ঠ্য পর্যায়ের বিশেষজ্ঞ বিশেষ করে বুয়েট এর বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে একটি টেকনিক্যাল সাব-কমিটি গঠন করা হবে। অন্যদিকে বিজিএমইএ ইউনিট আরসিসি’কে নিয়মিতভাবে অগ্রগতি বিষয়ে অবহিত করবে।

সমন্বিতভাবে কাজ করার ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত বিষয়গুলোতে সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলো সম্মত রয়েছেঃ-
১) বিজিএমইএ ইউনিট এর সম্মতি ব্যাতিরেকে অ্যাকর্ড এর পক্ষ থেকে কোন কারখানাকে বহিস্কার/টার্মিনেশন অথবা এসকেলেশন করা যাবে না।
২) একটি কারখানার ব্যর্থতার কারনে গ্রুপভূক্ত অন্য কোন কারখানা টার্মিনেট করা যাবে না মর্মে অ্যাকর্ড সম্মত রয়েছে।
৩) একই কারখানাকে বারবার পরিদর্শন/পূনরাবৃত্তি (আরসিসি, অ্যাকর্ড এবং নিরাপন উদ্যোগ এর নামে) করা হবে না।
৪) বিজিএমইএ ইউনিট ও অ্যাকর্ড এর মধ্যে কোন বিরোধ দেখা দিলে আরসিসি তা চ’ড়ান্তভাবে সুরাহা করবে।

প্রচলিত নিরাপত্তা উদ্যোগগুলোতে নতুন কারখানা তালিকাভ’ক্তির বিষয়ে উভয়পক্ষ মিলে একটি পদ্ধতি নির্ধারন করবেন বলে সম্মত রয়েছেন। এই সমঝোতা স্বারকের মাধ্যমে একপক্ষীয় ব্যবস্থার অবসান ঘটিয়ে বহুপক্ষীয় সম্পৃক্তার মাধ্যমে কারখানার সেলফ মনিটরিং ব্যবস্থার সূচনা হলো। বিজিএমইএ বোর্ড ও অ্যাকর্ড এর আন্তরিকতা ও পারস্পরিক সহযোগিতার নিদর্শনস্বরূপ এই সমঝোতা স্মারকে অ্যাকর্ড এর অন্তবর্তীকালীন সময়ে একসাথে কাজ করার সদিচ্ছা প্রতীয়মান হয়েছে।

আজকের পত্রিকা/এমইউ