বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিবুন নবী খান সোহেল। ছবি : সংগৃহীত

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিবুন নবী খান সোহেল জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। ১১ জুলাই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে তিনি নারায়ণগঞ্জ কারাগার থেকে জামিনে মুক্ত হন বলে জানা গেছে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ের গণমাধ্যম শাখার সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে ২০১৮ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় গুলশান ২ নম্বর গোলচত্বর এলাকা থেকে হাবিবুন নবী খান সোহেলকে গ্রেফতার করা হয়েছিলো। এরপর দীর্ঘ ১০ মাস কারাভোগ শেষে বিএনপির এ নেতা কারাগার থেকে মুক্ত হলেন।

এর আগে ২০১৮ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি হাবিবুন নবী খান সোহেলকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ করেছিলো বিএনপি। পরে তার মেয়ে জানান, তিনি নিরাপদ আছেন। এরপর দীর্ঘদিন আত্মগোপনে ছিলেন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি হাবিবুন নবী খান সোহেল। সবশেষ খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর তার মুক্তির দাবিতে বেশ কয়েকটি কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন সোহেল।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির মানববন্ধন চলাকালে সোহেলকে আটকের চেষ্টা করে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তবে সবার চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে যান তিনি। এরপর আর জনসমুক্ষে তাকে দেখা যায়নি।

সর্বশেষ ২০১৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর জনসভায় তিনি বক্তব্য দেন। এরপর আবার চলে যান আত্মগোপনে। এর ১৭ দিন পরই পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

আজকের পত্রিকা/কেএফ