আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী। ছবি : সংগৃহীত

জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় থেকে জেলখানায় একের পর এক  মানুষ ফাঁসি দিতো বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী।  ১৫ মার্চ শুক্রবার বিকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক  আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি-জামায়াতের সমালোচনা করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘এরা মানুষ হত্যার পার্টি, এরা খুনির পার্টি। ক্ষমতায় থাকলেও মানুষ মারে, ক্ষমতার বাইরে থাকলেও মানুষ হত্যা করে। এদের নেশা হলো খুনের নেশা। এদের জন্মও হলো হত্যার ভিতর দিয়ে। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় থেকে জেলখানায় একের পর এক  মানুষ ফাঁসি দিতো।’

মতিয়া চৌধুরী  বলেন, ‘বিএনপির মুণ্ডহীন একটা ধড় পড়ে আছে। দলটি নিশ্চল হওয়ার আগের পর্যায়ে আছে, মানুষের মাথা বিচ্ছিন্ন হলে গেলে শরীরটা যেমন কতক্ষণ ছটফট করে নিশ্চল হয়ে যায়,ঠিক সেই রকম।’

বিএনপিকে আবারও তিনি ‘বি হেডেটেড ন্যাশনালিস্ট পার্টি’ বলে মন্তব্য করেন।

এতিমের টাকা আত্মসাতের মামলায় খালেদা জিয়ার কারাবাসের কথা তুলে ধরে মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘পাপ বাপকেও ছাড়ে না।’ নিজের কারাজীবনের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, ‘আসামির চিকিৎসার ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।’

তিনি সার চাওয়ায় কৃষকদের হত্যায় জড়িতদের বিচার দাবি করেন।

১৫ মার্চ ‘কৃষক হত্যা দিবস’ উপলক্ষে এ সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ কৃষক লীগ। সভায় সভাপতিত্ব করেন কৃষক লীগের সভাপতি মোতাহার হোসেন মোল্লা।

সভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব- উল আলম হানিফ, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, কৃষক লীগের সহ-সভাপতি খান আলতাফ হোসেন ভুলু, শেখ জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার শামসুল হক রেজা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উম্মে কুলসুম স্মৃতি, সাংগঠনিক সম্পাদক বিশ্বনাথ সরকার বিটু, সাখাওয়াত হোসেন সুইট প্রমুখ।

আজকের পত্রিকা/আ.স্ব/