দু’মাসের দীর্ঘ লকডাউনের পর এখন কিছুটা শিথিল করা হয়েছে এর বিধি নিষেধ। দোকানপাটও খুলে স্বাভাবিক হচ্ছে স্থানীয় বাজারের চেহারা। শর্ত সাপেক্ষে সেলুন, পার্লারও খুলতে শুরু করেছে। তবে এখনই সেলুনে, পার্লারে যাওয়াটা কি নিরাপদ! বিশেষ করে ছেলেদের চুল, দাড়ি কাটার জন্য সেলুনে যাওয়ার বিষয়টি এই মুহূর্তে আরও কিছু দিন এড়িয়ে যাওয়া যেতেই পারে।

ছেলেরা এখন অনেকেই দাড়ি রাখেন। আজকাল পুরুষের ফ্যাশনের একটা গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল দাড়ি। তবে দাড়ি রাখলেই তো হবে না, সঠিকভাবে দাড়ির যত্নও নেওয়া জরুরি। বিশেষ করে করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকা অত্যন্ত জরুরি। তাই দাড়ির যত্নও নেওয়া মানে সেটিকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখাও। আর সেটার জন্য সেলুনে যাওয়ার দরকার কী! বাড়িতেই সাধের দাড়ির যত্ন নিন এই পাঁচ কৌশলে…

১) গাল ভরা সুন্দর দাড়ি পেতে প্রতিদিন সেটিকে আঁচড়ানো দরকার। দাড়ি আঁচড়ানোর জন্য বাজারে বিশেষ চিরুনি পাওয়া যায়। অনলাইনেও খোঁজ নিয়ে দেখতে পারেন। আর একান্তই না পেলে, বাজারে উপলব্ধ সবচেয়ে ছোট মাপের চিরুনি দিয়েই প্রতিদিন নিয়ম করে আঁচড়ে নিন আপনার দাড়ি।

২) চুলের মতো দাড়িকেও নিয়মিত পরিষ্কার রাখা প্রয়োজন। খাওয়ার পর প্রতিবার দাড়ি ভাল ভাবে পরিষ্কার করুন। প্রতিদিন ত্বকের কয়েক হাজার মৃত কোষ দাড়িতে এসে জমা হয়, যা থেকে দাড়িতে চুলকানির সৃষ্টি হয়। দাড়ির অংশের ত্বক শুষ্ক ও রুক্ষ হয়ে পড়ে। তাই নিয়মিত দাড়ি পরিষ্কার রাখুন।

৩) দাড়ির শুষ্কতা ও চুলকানি ভাব দূর করার জন্য দাড়িতে তেল মাখানো দরকার। এ ক্ষেত্রে এক্সট্রা ভার্জিন নারকেল তেল, বেবি অয়েল অথবা ভিটামিন ই-যুক্ত তেল ব্যবহার করা যেতে পারে। এই তেল দাড়ির চুল মোলায়েম ও ঝকঝকে রাখবে।

৪) দাড়ি পরিষ্কার করার জন্য বেবি শ্যাম্পুও খুবই উপযোগী। তবে সেটা না পেলে চুলে ব্যবহার করা শ্যাম্পু আর কন্ডিশনার দিয়েও কাজ চালানো যেতে পারে। তবে দাড়ি ধোয়ার পরে তা অবশ্যই ভাল করে মুছে নিতে হবে।

৫) দাড়ি সুন্দর ভাবে বাড়াতেও ট্রিমিং-এর প্রয়োজন আছে। নিয়মিত দাড়ি ট্রিম করুন। প্রতি দুই মাসে অন্তত একবার দাড়ি ছাঁটা প্রয়োজন।

  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares