হবিগঞ্জের বাহুবলে পরিবারের সদস্যদের কুপিয়ে মালামাল লুট করে নিয়েছে ডাকাত দল। এ সময় গ্রামবাসী ধাওয়া করে দেশীয় অস্ত্রসহ এক ডাকাতকে আটক করে। পরে বাহুবল থানা পুলিশকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আটককৃত ডাকাতকে থানায় নিয়ে আসে।

বুধবার ভোররাতে উপজেলার পশ্চিম জয়পুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- ওই গ্রামের মতিন মিয়ার ছেলে জুনাব আলী (২৫) ও তার চাচা কামাল মিয়া (৩৫)। তাদের হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভোররাতে জুনাব আলীর পরিবারের লোকজন ঘুমিয়ে পড়লে একদল ডাকাত ঘরে প্রবেশ করে সবাইকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মালামাল লুটে নেয়। এ সময় জুনাব আলী চিৎকার দিলে পাশের ঘর থেকে তার চাচা কামাল মিয়া এগিয়ে আসেন। ডাকাতদল তাদের দুইজনকে কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়।

এ সময় তাদের চিৎকারে গ্রামসীরা এগিয়ে এসে ডাকাতদের ধাওয়া করে এক ডাকাতকে আটক করে। তবে বাকি ডাকাতরা পালিয়ে যায়। এ সময় গ্রামবাসী বেশ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করে।

বাহুবল মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাজেদ জানান, গ্রামবাসী ধাওয়া করে এক ডাকাতকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত অবস্থায় ওই ডাকাতকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। বর্তমানে সে বাহুবল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে।

তবে ডাকাতরা কি পরিমাণ মালামাল লুটে করেছে তা এখনও জানা যায়নি বলে জানান তিনি।