আদালত। প্রতীকী ছবি

লালমনিরহাটে বাল্য বিয়ের দায়ে মেয়ের চাচাসহ দুইজনের জেল জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুহাম্মদ মনসুর উদ্দিন।

শনিবার (৯ নভেম্বর) রাতে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ইউএনও মুহাম্মদ মনসুর উদ্দিন এ দন্ড প্রদান করেন।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের গন্ধমরুয়া ভাটাপাড়া গ্রামের মৃত শুকুর আকন্দের ছেলে ও মেয়ের চাচা আব্দুল কুদ্দুস (৫৫) এবং কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নের ভনশর্মা গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে হাফিজুল ইসলাম (৪৫)। শেষে পন্ড হয় বাল্যবিয়ের সব আয়োজন।

আদিতমারী ইউএনও অফিস সুত্রজানায়, উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের গন্ধমরুয়া ভাটাপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ৯ম শ্রেনীতে পড়ুয়া স্কুল ছাত্রীর (১৪) সাথে বিয়ে ঠিক হয় কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার ভানশর্মা গ্রামের রিয়াজুল ইসলামের ছেলে আঙ্গুর হোসেন (২০) এর সাথে।

এ সময় মেয়ের বাড়ীতে এসেছেন বর পক্ষের লোকজন। চলছিল আনুষ্ঠানিকভাবে বাল্য বিয়ের সব আয়োজন ও খাওয়া দাওয়ার প্রস্তুতি। ঠিক সেই সময়ে পুলিশ নিয়ে মেয়ের বাড়ীতে হাজির হয় আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুহাম্মদ মনসুর উদ্দিন। এ সময় ইউএনও’র উপস্থিতি টের পেয়ে সবাই পালিয়ে গেলেও মেয়ের চাচা আব্দুল কুদ্দুস ও বর পক্ষের হাফিজুল ইসলামকে আটক করা হয়।

পরে ওই রাতেই ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে আব্দুল কুদ্দুসকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদন্ড ও হাফিজুল ইসলাামকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ২ মাসের কারাদন্ড প্রদান করেন। পরে জরিমানার অর্থ দিতে ব্যর্থ হওয়ায় রবিবার সকালে দুজনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আজ সকালে দন্ডপ্রাপ্তদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না/লালমনিরহাট