বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ছবি : সংগৃহীত

সরকারের মন্ত্রীরা যা বলেন সঙ্গে সঙ্গে তার উল্টো ঘটে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ২৪ এপ্রিল বুধবার নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘ক’দিন আগে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ঘটা করে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা করেছিলেন-রমজানকে সামনে রেখে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়বে না। কিন্তু তার পরদিনই হু হু করে প্রায় সম পণ্যের দাম বেড়েছে।

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ করে রিজভী বলেন, ‘এসব পণ্য কিনতে গিয়ে মানুষের জীবনে নাভিশ্বাস উঠেছে। অল্প আয়ের মানুষরা আঁতকে উঠছে রমজানের আগে হু হু করে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের এই মূল্য বৃদ্ধিতে। পবিত্র রমজানের আগে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ সরকারকে ধিক্কার জানাই।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘দেশে নারী-শিশু নির্যাতনসহ অপরাধ ও নিয়ম বহির্ভূত আচরণ এক ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেছে। এতে ভেঙে পড়েছে সমাজের বন্ধন। খবরের কাগজ খুললেই নারী ও শিশু নির্যাতন, লাশ আর মৃত্যুর হাতছানি। লক্ষ্মীপুরের দগ্ধ তরুণীর মৃত্যু, চট্টগ্রামের লোহাগড়ায় হাত-পা বেঁধে স্কুল ছাত্রীকে নির্যাতন, নোয়াখালীর সেনবাগে স্কুলছাত্রীকে আটকে রেখে নির্যাতন, ঝালকাঠিতে স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধারের সংবাদে গতকাল গণমাধ্যম পরিপূর্ণ। বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বিপজ্জনক অবস্থায় বসবাস করছে কিশোরী-তরুণী-ছাত্রীরা।’

‘মধ্যরাতের’ ভোটের সরকারের প্রভাবেই সমাজে অপরাধ প্রবণতা বিশ্বের সব দৃষ্টান্তকে অতিক্রম করেছে বলে দাবি করে রিজভী বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন দুঃশাসনের দোজখ। সবচেয়ে লোমহর্ষক ঘটনা ১৯ এপ্রিল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি বাশারের নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র ব্যক্তি এলাকার দরিদ্র মানুষ কালা মিয়ার পা কেটে নেয়। তাতেও ক্ষান্ত হয়নি তারা। কালা মিয়ার ছেলে বিপ্লবের দু’পায়ের রগও কেটে দিয়েছে। এই পৈশাচিক ঘটনা বিচারের মুখ দেখবে কিনা জানি না।’

আজকের পত্রিকা/রাজনীতি/আ.স্ব/