১ লাখ গাছের চারা বিতরণ : ছবি : সংগৃহীত

“সবুজের জয়গানে, এসো মিলি প্রাণে প্রাণে” এ স্লোগানের মধ্য দিয়ে রাজশাহীর বাঘা ও চারঘাট উপজেলার শিক্ষার্থীরা টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে ১ লাখ ৫ হাজার বৃক্ষ রোপণ করেছে।

এ উপলক্ষ্যে ১৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় চারঘাট পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও বাঘা মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আলাদা দুটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন।

২০১৫ সাল থেকে জুবায়ের আল মাহমুদ রাসেল নামের এক তরুণ “এক দিনের টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে গাছ রোপণ” আন্দোলন শুরু করেন।

গত চার বছর এই আন্দোলনে দেশের ৭৫০টি স্কুলের লাখো শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এরমধ্যে রাজশাহীর চারঘাট ও বাঘা, পাবনার ঈশ্বরদী, নাটোরের বড়াইগ্রাম, সিলেটের বিয়ানীবাজার ও খুলনার দিঘলীয় উপজেলার শিক্ষার্থীরা এই আন্দোলনে অংশ নিয়ে প্রায় আড়াই লাখ বৃক্ষ রোপণ করে।

চারঘাট পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, চারঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুল হোসেন।

অন্যদিকে, বাঘা উপজেলা সদরে অবস্থিত বাঘা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বৃক্ষরোপণ উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন বাঘা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট লায়েব উদ্দিন লাভলু। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাঘার ইউএনও শাহিন রেজা।

চারঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল হোসেন জানান, বৃক্ষপ্রেমিক জুবায়ের আল মাহমুদের উদ্ভাবন এবং প্রচেষ্টাকে কাজে লাগিয়ে একদিনের টিফিনের টাকায় শিক্ষার্থীদের মাঝে ৫৬ হাজার গাছ রোপণের জন্য বিতরণ করা হয়েছে। তার উপজেলার প্রতিটি স্কুলে সোমবার বৃক্ষরোপণ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা বলেন, “জুবায়েরের এই আন্দোলন অত্যন্ত যুগোপযোগী। শিক্ষার্থীরা যদি এই গাছগুলো রোপনের পর বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করে, তাহলে উপকৃত হবে দেশ। সুফল পাবে জাতি।”

প্রসঙ্গত, সর্বশেষ এবছর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ১৬ সেপ্টেম্বর ১ লাখ ৫ হাজার গাছ রোপণ করেছে চারঘাট এবং বাঘার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এনিয়ে গত পাঁচ বছরে গাছের সংখ্যা দাঁড়ালো সাড়ে ৩ লাখ।

-এস