বাংলাদেশে প্রথমবারের মত বিশ্বখ্যাত আন্তর্জাতিক পুরুষদের প্রসাধনী ব্র্যান্ড “রোমানো” নিয়ে এসেছে এসএমভি কনজ্যুমারস লিমিটেড। উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন জনাব অনিল গৌতম, বিজনেস হেড, উইপ্রো উনযা ওভারসিজ লিমিটেড; জনাব কাজী জিয়াউল হাসান, ব্যাবস্থাপনা পরিচালক, এসএমভি কনজ্যুমারস লিমিটেড এবং দেশের অন্যতম স্বনামধন্য স্টাইল আইকনরা- আজিম উদদৌলা, সন্ধি, ইন্দ্রানি দাস, কোকো, রাতুল রহমান প্রমুখ।সেই সূত্র ধরেই কথা হল অনিল গৌতমের সঙ্গে। মিঃ অনিল গৌতম , বিজনেস হেড , উইপ্রো উনজা লিমিটেড মিঃ অনিল গৌতম এমবিএ করা একজন মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ার। ২০০৪ সালে উইপ্রো’তে সেলস এ কাজ করা শুরু করেন।

এরপর তিনি মার্কেটিং এ চলে আসেন।২০০৮ সালে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে মার্কেটিং এর কাজে পদোন্নতি পান। বিজনেস হেড হিসেবে ২০১৩ সালে যাওয়ার তিনি মধ্য প্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকার বিভিন্নদেশে বিক্রয় ও বিপণনের কার্যভার পরিচালনা করেছেন মি. অনিল গৌতম। উইপ্রো উনজা সন্মন্ধে আমাদের কে বলুন। উইপ্রো কনজিউমার কেয়ার এশিয়ার দ্রুত বর্ধমান এফএমসিজি সংস্থার মধ্যে একটি। এটি প্রধানত এশিয়া, মধ্য প্রাচ্য এবং আফ্রিকার ৫০ টির বেশি দেশে কাজ করে। ১৫টি দেশে এর আছে প্রায় ৯০০০ কর্মীবাহিনী, যার ৫৫% নারী। উইপ্রো কনজিউমার কেয়ার দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিগত যত্ন পণ্যগুলির নির্মাতা ও বিপণনকারী। ২০০৩ সালের পর থেকে কোম্পানিটি ১১টির বেশি লাভজনক প্রতিষ্ঠান অধিগ্রহন করেছে। এর মধ্যে ২০০৭ সিঙ্গাপুরভিত্তিক কোম্পানি উনজা হোল্ডিংস অধিগ্রহন ছিল এযাবতকালের সবচেয়ে বড় অধিগ্রহন চুক্তি। এই অধিগ্রহণের পরে কোম্পানিটি ব্যেবসা বাড়িয়েছে বহুগুন এবং ছড়িয়ে পড়েছে মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, চীন এবং মধ্য প্রাচ্যের বাজারগুলিতে। বর্তমানে ৩০ টিরও বেশি ব্র্যান্ডের এক আকর্ষনীয় পোর্টফোলিও আছে আমাদের।সানতুর এবং গ্লুকোভিটা ভারত
এর শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ড। এনচ্যান্টর, সাফি, ইয়ার্ডলি, এভারসফট এবং রোমানো এশিয়ান দেশগুলিতে খুব জনপ্রিয়। বাংলাদেশে এনচ্যান্টর, ইয়ার্ডলি এবং সানতুর আগে থেকেই ছিল, এবার সেই তালিকায় যুক্ত হল রোমানো।

বাংলাদেশকে কীভাবে আপনার ব্র্যান্ডের নতুন বাজার হিসাবে দেখছেন?

গত ৩০ বছরে বাংলাদেশ দ্রুত বর্ধনশীল দেশ হিসাবে বিকশিত হয়েছে। এর জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার চীন ও ভারতের মতো দ্রুত বর্ধমান প্রতিবেশীদের সমান ৭%। নিকট অতীতে চীনা রাষ্ট্রপতি এবং ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী তাদের সফরের সময় বহু বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগের ফলে বৃদ্ধির হার আরও বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে। সাম্প্রতিক অতীতে বিশ্বব্যাপী ধাক্কা সত্ত্বেও বাংলাদেশের মুদ্রা ব্যবস্থা বেশ স্থিতিশীল ছিল। বাংলাদেশ সর্বাধিক প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বাজারের মধ্যে একটি। আমাদের ব্র্যান্ডগুলি বিশেষত এনচ্যান্টর গ্রাহকরা খুব ভালভাবে গ্রহণ করেছেন। এবার আমরা
নিয়ে এসেছি পুরূষদের জন্য মেল গ্রুমিং ব্র্যান্ড রোমানো। প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া খুব উৎসাহজনক।

রোমানো সম্পর্কে বলুন?

রোমানো পুরুষদের বিভাগে একটি শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ড । রোমানো বিলাসবহুল বিশ্বমানের পুরুষদের সুগন্ধি সরবরাহ করে। আমরা এছাড়া বডি স্প্রে, রোল-অন সহ আরও বিভিন্ন সুগন্ধি প্রোডাক্ট আছে রোমানোর। ধীরে ধীরে সেগুলোও বাংলাদেশে চালু হবে। রোমানো দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশগুলিতে খুব ভাল করেছে। আশা করছি বাংলাদেশে এটা
খুব ভাল সাড়া পাবে। বাংলাদেশে এনচ্যান্টর এরমাঝেই জনপ্রিয় ব্র্যান্ড হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে। এনচ্যান্টর বডি লোশন, ডিওডেরান্ট, বডি স্প্রে, রোল-অনস, ট্যালকম পাউডার, পারফিউমস, শাওয়ার জেল এবং সাবানসহ অনেক টয়লেট্রিজ প্রোডাক্ট রয়েছে।

কোন শক্তিগুলি যা আপনাকে বাংলাদেশে সফল করতে পারে?

বিভিন্ন ভৌগলিক অঞ্চলের ৫০ টির বেশি দেশে ব্র্যান্ড বাজারজাত করার ব্যবসার অভিজ্ঞতা আছে আমাদের।আমর বাংলাদেশে ধীরে ধীরে এগোচ্ছি। এনচ্যান্টর ভালো করায় আমরা রোমানোর বডি স্প্রে নিয়ে এসেছি।আমাদের ব্যবসা এদেশে বেড়ে উঠেছে মানুষের মুখে মুখে।ভাল প্রেডাক্ট দিলে জনগন সেটা গ্রহন করবেই। সব মিলিয়ে আমরা বাংলাদেশে ভাল করার ব্যাপারে আশাবাদী।