বাংলাদেশের সামনে বিশ্বকাপে নিজেদের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছে ইংল্যান্ড। কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে ৩৮৬ রান করেছে স্বাগতিকরা।

বিশাল এ টার্গেট টপকাতে হলে বাংলাদেশকেও গড়তে হবে বিশ্বরেকর্ড। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এত বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড আর নেই। ২০১১ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩২৯ রান তাড়া করে জিতেছিল আয়ারল্যান্ড। সেটিই এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ড।
৩৮৬ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় কারানোর পথে বিশ্বকাপে নিজেদের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডও গড়েছে ইংলিশরা।
এরআগে বিশ্বকাপে ইংলিশদের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ ছিল ৩৩৮ রান। ২০১১ সালে ব্যাঙ্গালুরুতে ভারতের বিপক্ষে ৮ উইকেটে এই সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছিল তারা। ম্যাচটি অবশ্য টাই হয়েছিল। বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহের রেকর্ড অস্ট্রেলিয়ার। ২০১৫ সালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে এই রান করেছিল তারা।
দারুণ শুরু এনে দেন দুই ওপেনার জেসন রয় এবং জনি বেয়ারস্টো। দুজনের ১২৮ রানের জুট ভাঙেন মাশরাফি। ২০তম ওভারে মেহেদী মিরাজের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন অর্ধশতক হাঁকানো বেয়ারস্টো। ২১ রানে জো রুটকে বোল্ড করেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। কিন্তু অপর প্রান্তে রানের চাকা সচল রাখেন জেসন রয়। ৩৫তম ওভারে মিরাজের বলে পরপর তিনটি ছক্কা হাঁকানোর পর চতুর্থ বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন রয়। তবে তার আগে খেলে যান ১২১ বলে ১৫৩ রানের অসাধারণ ইনিংস।
রয় ফিরে যাওয়ার পরেও বাংলাদেশ বোলাদের স্বস্তিতে থাকতে দেননি জস বাটলার এবং অধিনায়ক ইয়ন মরগান। ৪৪ বলে ৬৪ করে দলকে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে দিয়ে বিদায় নেন বাটলার। মরগান করেন ৩৩ বলে ৩৫ রান। আর ইংল্যান্ড করে ৬ উইকেটে ৩৮৬ রান।
স্কোর:
ইংল্যান্ড ৩৮৬/৬ (৫০)

জেসন রয় ১৫৩ (১২১)
জনি বেয়ারস্টো ৫১ (৫০)
জো রুট ২১ (২৯)
জস বাটলার ৬৪ (৪৪)
ইয়ন মরগান ৩৫ (৩৩)
বেন স্টোকস ৬ (৭)
ক্রিস ওকস ১৮* (৮)
লিয়াম প্লাঙ্কেট ২৭* (৯)
বোলার:
সাকিব ১০-০-৭১-০
মাশরাফি ১০-০-৬৮-১
সাইফুদ্দিন ৯-০-৭৮-২
মোস্তাফিজ ৯-০-৭৫-১
মিরাজ ১০-০-৬৭-২
মোসাদ্দেক ২-০-২৪-০
টার্গেট ৩৮৭।