বশেমুরবিপ্রবিতে হামলার প্রতিবাদে রাবি সাংবাদিকদের বিক্ষোভ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা।

শনিবার বিকেল ৪ টা ৩০ মিনিটের দিকে তারা বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। মহাসড়ক অবরোধ শেষে বিক্ষোভ মিছিলটি ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণে প্রবেশ করেছে।

অবস্থান কর্মসূচিতে আন্দোলনকারীরা বলেন, ‘বশেমুরবিপ্রবিতে কর্মরত সাংবাদিককের একটি ফেসবুক পোষ্টের উপর ভিত্তি করে এক উপচার্য সাংবাদিককে সাময়িক বহিষ্কারের ঘোষণা দেয়। এর পর এই ঘটনাকে কেন্দ্রকরে সারা দেশের ক্যাম্পাস সাংবদিকরা একযোগে আন্দোলন শুরু করেছি। আন্দোলনের তোপের মুখে পরে উপাচার্য সাময়িক বরখাস্ত আদেশ প্রত্যাহার করে। এদিকে বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করলেও এর দায়ভার সম্পূর্ণ জিনিয়ার ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীরা ভিসি পদত্যাগের আন্দোলন করে। আন্দোলনের এক পর্যায় তাদের ওপর ভিসির লেলিয়ে দেয়া হামলাকারীদের হামলার শিকার হয় ৩জন সাংবাদিকসহ প্রায় বিশ জন শিক্ষার্থী।

তারা আরো বলেন, এ ঘটনার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ স্বরুপ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকসহ শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নেমেছি। বশেমুরবিপ্রবির উপাচার্য পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আমরা আমাদের এই আন্দোলন চলমান রাখব।

জানা যায়, শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন গোবরা এলাকায় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করেছে বহিরাগতরা। এ ঘটনায় কমপক্ষে ২০ শিক্ষার্থী আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী গণমাধ্যমকে বলেন, সকালে শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে অংশগ্রহণের উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় ৪০-৫০ জনের একটি দল তাদের ওপর রামদা, হকিস্টিক এবং লাঠি নিয়ে হামলা চালায়। হামলায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। আহত শিক্ষার্থীদের মধ্যে ফিশারিজ দ্বিতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থীর মাথা ইট দিয়ে ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। আহত শিক্ষার্থীদের গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এমএ জাহাঙ্গীর/রাবি