এই শিশুর দায়িত্ব নিচ্ছে না কেউ।

মৌলভীবাজার জেলার লাউয়াছড়া বনের জানকিছড়া থেকে উদ্ধার হওয়া পলিথিনে মোড়ানো নবজাতককে উন্নত চিকিৎসার জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। তার অবস্থা আশংকাজনক হলেও উন্নত চিকিৎসার জন্য দায়িত্ব নিয়ে এগিয়ে আসছেন না কেউই।

২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার কারণেই তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শাখাওয়াত হোসেন।

এর আগে ২৪ এপ্রিল বুধবার সকালে শিশুটিকে উদ্ধারের পর সারাদিন পুলিশি প্রহরায় শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।

জানা যায়, সারাদিন শিশুটি ভালো অবস্থায় থাকলেও বুধবার রাত দশটার দিকে হঠাৎ করে শিশুটির শ্বাসকষ্ট শুরু হলে তাকে তাৎক্ষণিকভাবে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের আরএমও (আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা) ডা পলাশ রায় জানান, বাচ্চাটির অবস্থা আশংকাজনক। গতকাল রাত থেকেই বাচ্চাটির শরীরে নানান ধরনের সমস্যা তৈরি হয়েছে। আমরা আমাদের সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করছি বাচ্চাটিকে সুস্থ করে তোলার।

এ ব্যাপারে জানতে শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলামের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি মুঠোফোন ধরেন নি।

নবজাতকের উন্নত চিকিৎসার ব্যাপারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ) সার্কেল আশরাফুজ্জামান বলেন, আমি একটা মিটিং এ আছি। আপনি সমাজসেবা অফিসারের সাথে কথা বলেন।

পরে শ্রীমঙ্গল উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সোয়েব আহমেদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন হলে বাচ্চাটিকে হাসপাতালের তত্ত্বাবধানেই পাঠাতে হবে। আমরা বাচ্চাটির চিকিৎসার সমস্ত খরচ বহন করছি। আমাদের একজন অফিসার এই বিষয়গুলো দেখছেন।

শ্রীমঙ্গল সরকারি শিশু পরিবারের উপ-তত্ত্বাবধায়ক মুমতাহা চৌধুরী বলেন, আমি শিশুটির কাছে যাচ্ছি। তবে বাচ্চাটির দায়িত্ব নেওয়ার কথা পুলিশেরই। তবুও আমরা যতটুকু পারি করবো।

আজকের পত্রিকা/মৌলভীবাজার/এমএআরএস