বটগাছ পড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া পরিবার এখন খোলা আকাশের নিচে।

নাটোরের নলডাঙ্গায় কালবৈশাখী ঝড়বৃষ্টির তাণ্ডবে গাছপালা বাড়িঘরের ও আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। পুরানো একটি বড় বটগাছ উপরে পড়ে ৫ হতদরিদ্র পরিবারের লোকজন প্রাণে রক্ষা পেলেও বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়ে ব্যাপক ক্ষতি মুখে পড়েছে।

এছাড়া ঝড়ে কয়েকটি স্থানে বৈদ্যতিক খুটি ভেঙ্গে ও তার ছিরে বিদ্যুৎ লাইন ঝড়ের পর থেকে অনেক জায়গায় বিপর্যয় ঘটেছে।শুক্রবার রাত দেড়টার দিকে উপজেলার উপর দিয়ে প্রচন্ড বেগে এ ঘর্ণিঝড় বয়ে গেলে এসব ক্ষয়ক্ষতি হয়।

শনিবার সরেজমিন বিভিন্ন এলাকা ঘুরে জানা যায়, ২৪ মে শুক্রবার রাতে উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে উপর দিয়ে হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড় ও বজ্রবৃষ্টি বয়ে যায়।এতে বিভিন্ন এলাকায় বাগানের আম, গাছপালার ভেঙ্গে বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

বিশেষ করে উপজেলার মাধনগর ইউনিয়নের ভট্রপাড়া গ্রামের হতদরিদ্র ভ্যানচালক আবুল কামাল,আব্দুল লতিফ,বিধবা আজিদা সুলতানা লতিফ শেখ ও রাসেলের বাড়ি ঘরের উপর ৫০-৬০ বছরের একটি বড় আকৃতির সরকারি একটি বটগাছ উপরে পড়ে।এতে ওই ৫ পরিবারের শিশু বৃদ্ধ সদস্যরা প্রাণে রক্ষা পেলেও টিনের বেড়া ও টিনের চালা বাড়িঘর দুমরে মুচরে ঘরের সব আসবারপত্র বিধ্বস্ত হয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়।

এতে সাগর নামের এক কিশোর আহত হয়।

এছাড়া ঝড়ে কয়েকটি স্থানে বৈদ্যতিক খুটি ভেঙ্গে ও তার ছিরে বিদ্যুৎ লাইন ঝড়ের পর থেকে দুপর পযন্ত অনেক জায়গায় বিদ্যুৎ বিপর্যয় ঘটেছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য হান্নান আলী জানান, ঝড় বৃষ্টিতে এ অসহায় হতদরিদ্র ভূমিহীন ৫ পরিবারের বাড়িঘরের উপর বট গাছ উপড়ে পড়ে তাদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

ইউএনও সাকিব-আল-রাব্বি জানান, বিষয়টি আমি জেনে ওই পরিবার গুলোর প্রতি মানবিক সহযোগিতা দেওয়া হয়েছে।পরবর্তীতে আরোও সাহায্যে করা হবে।

পরিতোষ অধিকারী/নাটোর