চলচ্চিত্রের ১০ বইয়ের প্রচ্ছদ। ছবি: সংগৃহীত

কিছুদেন আগেই শুরু হয়েছে অমর একুশে গ্রন্থ মেলা ২০১৯। জমে উঠেছে বিভিন্ন বয়সের বই প্রেমীদের প্রাণের মেলা। অন্যান্য বইয়ের পাশাপাশি কিনতে পারেন চলচ্চিত্র বিষয়ক বই। যারা চলচ্চিত্র তৈরি করা নিয়ে ভাবছেন তারা সংগ্রহ করে নিন গুরুত্বপূর্ণ এই বইগুলো। আপনি জানতে পারবেন চলচ্চিত্রের বিভিন্ন কলা-কৌশল সম্পর্কে। চলুন জানা যাক বইগুলো সম্পর্কে…

১. ‘বিষয়: চলচ্চিত্র’
বইটি লিখেছেন সত্যজিৎ রায়। বইটি আপনাকে জানাবে চলচ্চিত্র সম্পর্কে গভীর তথ্য, সূক্ষ্ম মনস্তত্ত্ব, দোষগুণে মেশানো জটিল চরিত্র নির্বাচন ইত্যাদি বিষয় নিয়ে। এতে ১৮টি প্রবন্ধে তিনি চলচ্চিত্রের বিভিন্ন কারিগরি দিক, শিল্প ভাবনা, চরিত্র এবং তার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেছেন। বিষয় চলচ্চিত্র বইয়ের প্রথম প্রবন্ধ ‘চলচ্চিত্রের ভাষা: সেকাল ও একাল’। এ প্রবন্ধে সত্যজিৎ রায় সিনেমার ভাষা ও ব্যাকরণের উদ্ভব এবং এর বিবর্তনের ইতিহাস বর্ণনা করেছেন। সিনেমার সঙ্গে অন্য শিল্প মাধ্যম যেমন- স্থিরচিত্র, চিত্রকলা ও মঞ্চ নাটকের পার্থক্য তুলে ধরেছেন। সিনেমার ভাষা নির্মাণে অগ্রণী পরিচালক ডি ডব্লিউ গ্রিফিথ, সের্গেই আইজেনস্টাইন, জা রেনোয়া, ফ্রাঁসোয়া ক্রুফো, জাঁ লুক গদার প্রমুখের ভাষা ও বৈশিষ্ট্য নিয়ে আলোচনা করেছেন। এছাড়াও তিনি তুলে ধরেছেন চলচ্চিত্রের নির্বাক যুগ থেকে সবাক যুগে উত্তরণ ও সাদা-কালো থেকে রঙিন সিনেমার আবির্ভাবের কথা। বইটি চলচ্চিত্র সম্পর্কে অত্যন্ত উঁচুমানের লেখায় ভরা।যারা চলচ্চিত্র ভালোবাসেন এবং চলচ্চিত্রের বিষয়ে পড়াশোনা করতে চান বা জানতে চান তাদের জন্য একটি অবশ্যপাঠ্য বই এটি। প্রকাশ করা হয়েছে কবি প্রকাশনি থেকে। বইটির দাম রাখা হয়েছে ২০০ টাকা।

২. ‘চলচ্চিত্রে গল্প বলা: ধাপে ধাপে চিত্রনাট্য লিখন’
এবারের বইমেলায় লেখক বিকাশ সিএইচ ভৌমিকের চলচ্চিত্র বিষয়ক বই ‘চলচ্চিত্রে গল্প বলা-ধাপে ধাপে চিত্রনাট্য লিখন’ প্রকাশিত হয়েছে। বইটি প্রকাশ করেছে সময় প্রকাশনী। বইটিতে চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য ডেভলপমেন্ট তথা চলচ্চিত্রের গল্প লিখতে কিভাবে একটি নির্দিষ্ট কাঠামোর মধ্যে থেকে ধাপে ধাপে এগিয়ে যেতে হয় সে প্রক্রিয়া পরিপূর্ণ উদাহরণ সহকারে বর্ণিত হয়েছে। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন উজ্জ্বল ঘোষ। বইটি বইমেলায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সময় প্রকাশনীর স্টলে পাওয়া যাচ্ছে। মূল্য ১৭৫ টাকা।

৩. ‘চার্লি চ্যাপলিন’

বইটিতে চ্যাপলিনের চোটবেলা থেকে শেষ পর্যন্ত জীবন ও মানসের নানা প্রসঙ্গ তুলে ধরা হয়েছে। বিচিত্র অম্লমধুর ঘটনা হতে শুরু করে তার জীবনের উথান-পতন, চলচ্চিত্রজীবন, দাম্পত্যজীবন এমনকি সাংসারিক হিসেবিপনার কথাও বইটিতে তুলে ধরা হয়েছে। চলচ্চিত্রকার মৃণাল সেন চার্লির চলচ্চিত্রে কাহিনীগুলোই বলেননি, প্রত্যোকটি চলচ্চিত্রে পেছনের ঘটনা, চার্লির ভবন-কৌশল, গল্প নির্বাচণের সতর্কতা ও বস্তুনিষ্ঠ আলোচনা ব্যাখ্যা করেছেন। বইটি কবি প্রকাশনি থেকে প্রকাশিত। বইটির মূল্য ২০০ টাকা।

৪. ‘করোসাওয়ার আত্মজীবনী’
লিখেছেন রুদ্র আরিফ। এশিয়ার সিনেমাকে এই সুদীর্ঘ মহাদেশের সীমানার বাইরে, বৃহত্তর আন্তর্জাতিক মহল বা পশ্চিমাবিশ্বে প্রথমবার ব্যাপকভাবে পরিচিত করে দিয়েছিলেন যে মহান ফিল্মমেকার, তিনি আকিরা কুরোসাওয়া। তিনি বিশ্বাস করতেন, যা তার বলার ছিল, সবই নানাভাবে বলে গেছেন সিনেমায়। বইটিতে জাপানি এই মাস্টার ফিল্মমেকারের ফিল্মমি জীবন কৌশল তুলে ধরা হয়েছে এই বইটির মাধ্যমে। বইটি ঐতিহ্য প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ৫০০ টাকা।

৫. ‘চলচ্চিত্রের সাথে বোঝাপড়া’
লিখেছেন বেলায়েত হোসেন মামুন। ইটিতে ১৬টি প্রবন্ধ আছে। এতে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসের গতিপথ অনুসন্ধান করা হয়েছে। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসের মাইলফলকগুলো পড়ে দেখবার, পরখ করবার চেষ্টা করা হয়েছে। বইটিতে বাংলা ভাষার চলচ্চিত্রের তিন উজ্জ্বল পূর্বসূরি সত্যজিৎ রায়ের জীবন ও কর্মে রবীন্দ্রনাথ, ঋত্বিক ঘটকের ভাঙ্গা বাংলার অস্থি-সন্ধান এবং মৃণাল সেনের সামগ্রিক চলচ্চিত্রকর্মে তার চেতনা প্রবাহ বুঝবার বিষয়ে শ্রম দেয়া হয়েছে। আরো জানান, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্রে ‘মুক্তি’র খোঁজ, বাংলাদেশের চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের ত্রি-কালের অভিমুখসহ জহির রায়হান, বাদল রহমান, তারেক মাসুদ, তানভীর মোকাম্মেল ও মোরশেদুল ইসলামের কাজের, চিন্তার এবং তৎপরতার বিশ্লেষণমূলক আলোচনার মাধ্যমে সমকালের সাথে বোঝাপড়ার গল্প আছে। কথাপ্রকাশ থেকে বইটি প্রকাশিত হয়েছে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ৬৫০ টাকা।

৬. ‘চলচ্চিত্রের বিচার’
এই শিরোনামে বইটি লিখেছেন বিধান রিবেরু। এই বইতে চলচ্চিত্রকে ফিরে দেখা হয়নি কিন্তু চলচ্চিত্রের সমালোচনা করা হয়েছে। বইটিতে চলচ্চিত্রবিলাস করা হয়নি চলচ্চিত্র ভাবনাকে উস্কে দেয়া হয়েছে। লেখক চলচ্চিত্রকে নিবিড়ভাবে পাঠ করেছেন। এর সংকট, সমস্যা, সীমাবদ্ধতা ইত্যাদি বিষয়ে অনুপুঙ্খ পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণ প্রয়াস আছে এ বইয়ে। সাধারণ পাঠক ও বিশেষজ্ঞদেরও অনেক প্রশ্নের মুখোমুখি করবে এই বই। কথাপ্রকাশ থেকে এবারের বইমেলায় বইটি বের হয়েছে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ১৬০ টাকা।

৭. ‘চলচ্চিত্র পাঠ’
শিরোনামের বইটি লিখেছেন বেলায়েত হোসেন মামুন। সমসাময়িক চলচ্চিত্রে ভাবনা ও গবেষণাকর্মের ফল এই বই। চলচ্চিত্র উৎপাদকের শৈল্পিক বা বাণিজ্যিক অভিপ্রকাশ এবং তার প্রতি ভোক্তার দর্শকের সাড়া এই দুই ব্যাপারই বইটিতে গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা করা হয়েছে। বইটি প্রকাশ পেয়েছে কথাপ্রকাশ প্রকাশনী থেকে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ৩০০ টাকা।

৮. ‘চলচ্চিত্র বোধিনী’
লিখেছেন বিধান রিবেরু। বইতে তিনটি অধ্যায়ে রয়েছে মোট দশটি প্রবন্ধ। প্রথম অধ্যায়ে রয়েছে জাতীয় চলচ্চিত্রের ধারণা এবং এর আলোকে ঢালিউড, বলিউড ও হলিউডকে নিয়ে ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ। দ্বিতীয় অধ্যায়ে রয়েছে সাহিত্য ও চলচ্চিত্র বিষয়ক তাত্ত্বিক ও ইতিহাস নির্ভর প্রবন্ধ। তৃতীয় অধ্যায়ে রয়েছে চলচ্চিত্র আন্দোলন ও পর্নোগ্রাফির ইশতেহার নিয়ে আলোচনা। বইটি প্রকাশিত হয়েছে কথাপ্রকাশ থেকে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ২০০ টাকা।

৯. ‘চলচ্চিত্র’
‘চলচ্চিত্র’ শিরোনামে বিশাল একটি বই লিখেছেন খন্দকার মাহমুদুল হাসান। তিনি এই বইটি শুরু করেছেন চলচিত্রের আন্তর্জাতিক ইতিহাস দিয়ে, এবং তারপরে এসেছেন ভারত উপমহাদেশ এবং শেষে বাংলাদেশ। ধারনা করি তার এই দীর্ঘ শুরুর কারনটা হল চলচিত্র নিয়ে একটা পুর্ণাঙ্গ ধারনা দেয়া। তার বই থেকে জানা যায়, চলচিত্র আবিস্কার হবার পরে সেটা ভারতে আসতে বেশি সময় লাগেনি, এবং কলকাতাতেও সেটা ছড়াতে বেশি সময় লাগেনি। সে সময়ে বাংলায় চলচিত্রের প্রানপুরুষ ছিলেন হীরালাল-ধীরেন গাঙ্গুলী, আরও জানা যায়, তারা শুধু যে অবিভক্ত বাংলায় নয়, বরং সম্পুর্ন ভারত উপমহাদেশে চলচিত্রের পথিকৃত ছিলেন। এই বইটিতে বিভিন্ন তথ্য, ছবি এবং সাক্ষাতকারের মাধ্যমে খন্দকার মাহমুদুল হাসান একটি ইতিহাসকে তুলে ধরতে চেয়েছেন। যারা বাংলাদেশের চলচিত্র নিয়ে জানতে, বুঝতে আগ্রহী, তারা এই বইটা পড়ে উপকৃত হবেন। কিনে পড়ুন, রেখে দিন যত্ন করে। এটা একটা রেফরেন্স বই হতে পারে টাইম টু টাইম. আপনার তথ্য চাহিদা মেটতে পারে। কথাপ্রকাশ থেকে বইটি প্রকাশিত হয়েছে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ১০০০ টাকা।

১০. কান-কথা’
বইটি লিখেছেন জনি হক। বইটি প্রকাশ পেয়েছে ঐতিহ্য প্রকাশনী থেকে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ২০০ টাকা। ফ্রান্সের কান চলচ্চিত্র উৎসবের হালচাল নিয়ে লেখা হয়েছে বইটি।

আজকের পত্রিকা/এসএ