সোনাগাজী পৌর কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতা মাকসুদ আলম।

ফেনী জেলার মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় সোনাগাজী পৌর কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতা মাকসুদ আলমের পাঁচদিনের রিমাণ্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

১৫ এপ্রির সোমবার বেলা ১২টার দিকে ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সরাফউদ্দিনের আদালতে তাকে ১০ দিন রিমাণ্ডের জন্য আবেদন করা হয়। পরে শুনানি শেষে মাকসুদ আলমের পাঁচদিনের রিমাণ্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফেনীর পিবিআই পরিদর্শক মো. শাহ আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মাকসুদ আলমের ১০ দিন রিমান্ডের আবেদন করা হলে বিচারক শুনানি শেষে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে শুক্রবার বিকালে মাকসুদ আলমকে ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তানিয়া ইসলামের আদালতে হাজির করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার রাতে পিবিআইয়ের একটি দল অভিযান চালিয়ে রাজধানীর ফকিরাপুল এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। মাকসুদ সোনাগাজী পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সোনাগাজী পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক।

সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি এ বছর আলিম পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছিলেন। ওই মাদরাসার অধ্যক্ষ এসএম সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনে গত মার্চে সোনাগাজী থানায় একটি মামলা করে নুসরাতের পরিবার।

প্রসঙ্গত ৬ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজীতে পরীক্ষাকেন্দ্রের ভেতর ওই ছাত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে হত্যাচেষ্টা চালায় দুর্বৃত্তরা।

পরে নুসরাত মারা যায়।

আজকের পত্রিকা/ফেনী