ফুলবাড়ীতে নৈশ প্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে বাদশা মিয়া (৪৫) নামের এক মৎস্য পুকুরের পাহারাদরকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুরবৃত্তরা।

গত বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার বেতদিঘী ইউনিয়নের নন্দিগ্রাম বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকার একটি মৎস্য পুকুর পাড়ে এই হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটে।

বৃহস্পতিবার সকালে ওই পুকুর পাড় থেকে নিহত প্রহরী বাদশা মিয়ার মৃতদেহ উদ্ধার করেছে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ।

নিহত বাদশা মিয়া উপজেলার বেতদিঘি ইউনিয়নের আরজি সাহাপুর গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে।

সে গত এক বছর থেকে তামিম এ্যাগ্রোফার্ম এর একটি ভাড়া করা মৎস্য পুকুরে পাহারাদারের কাজ করতো।

তামিম এ্যাগ্রোফার্ম এর মালিক সাহাজাহান মিয়া বলেন, গত এক বছর থেকে বাদশা মিয়া পাহারাদারের  কাজ করে আসছে, গত বুধবার দিবাগত রাতে সে পাহারা দেয়ার সময় কে বা কাহারা তাকে আক্রমন করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে।

নন্দিগ্রাম ঈদগাহ বস্ত্রির বাসিন্দা শাখাওয়াৎ হোসেন বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে গ্রামের গৃহবধুরা মাঠে কাজ করতে গিয়ে নৈশ্য প্রহরি বাদশার মৃতদেহটি দেখতে পায়।

একই এলাকার বাসীন্দা ও পুকুরটির মুল মালিক মৃত কফিল উদ্দিনের ছেলে আব্দুস ছালাম বলেন,ওই পুকুরটি তিনি গত দুই বছর থেকে তামিম এ্যাগ্রোফার্মের নিকট মৎস্য চাষের জন্য তিন বছর মেয়াদে ভাড়া দিয়েছেন, এর পর থেকে তামিম এ্যাগ্রোফার্ম ওই পুকুরে মৎস্য চাষ করে আসছে।

তিনি বলেন, বুধবার দিবাগত রাতে নন্দ্রিগ্রাম বিদ্যালয়টির একটি বার্ষিক অনুষ্ঠান ছিল, সেখানে সারা রাত মাইক বেজেছে, এই জন্য তারা কোন শব্দও শুনতে পায়নি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ফুলবাড়ী সার্কেল) মিয়া আশিষ বীন হাছান বলেন, স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে খবর পেয়ে।

পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। হত্যার ক্লু খোঁজার পাশাপাশি দুবৃর্ত্তদের ধরতে প্রচেষ্টা অব্যহত রেখেছে পুলিশ।

-মেহেদী হাসান উজ্জল