আহত যাত্রী

ময়মনসিংহের ফাতেমানগরে যাত্রীবাহী চলন্ত কমিউটার ট্রেনের ছাদে গণছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে কমপক্ষে ১০ যাত্রী আহত হলে গুরুতর ‘দুজন’কে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

১৫ জুন শনিবার রাত পৌনে নয়টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথের ময়মনসিংহের ফাতেমানগর স্টেশন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ছিনতাইয়ের শিকার যাত্রীরা জানান, ঢাকা-ময়মনসিংহ-জামালপুর রেলপথে চলাচলকারী দেওয়ানগঞ্জগামী যাত্রীবাহী কমিউটার ট্রেন রাত ৮টার দিকে গফরগাঁও স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়ার পর রাত পৌনে নয়টার দিকে ফাতেমানগর স্টেশনে যাত্রা বিরতি করে। ট্রেনটি ফাতেমানগর স্টেশন অতিক্রম করার পরপরই যাত্রীবেশে ৭/৮ জনের একদল ছিনতাইকারী ট্রেনের ছাদে ভ্রমণরত ৪০/৫০ জন যাত্রীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সর্বস্ব ছিনিয়ে নিতে থাকে। এ সময় যাত্রীরা বাধা দিলে রামদা দিয়ে পিটিয়ে এবং ছুরিকাঘাতে আহত করা হয় যাত্রীদের।

এ ঘটনার সময় কমপক্ষে ১০ জন যাত্রী আহত হয়। এদের মধ্যে মোহনগঞ্জ উপজেলার নলজুড়ি গ্রামের কলেজছাত্র রাজিব (১৯) ও ময়মনসিংহ সদর উপজেলার চর ইশ্বরদিয়া গ্রামের অটোরিকশাচালক হৃদয় মিয়া (২৫) ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হন।

ছিনতাইকারীরা গুরুতর আহত দুজনকে চলন্ত ট্রেন থেকে ফেলে দিতে চাইলে অন্য যাত্রীরা বাধা দিয়ে তাদের প্রাণে রক্ষা করেন। পরে আহত দুজনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ছিনতাইকারীদের হামলায় আহত ময়মনসিংহের সদর উপজেলার চরবড়বিলা গ্রামের শাহীন (২৯) জানান, ‘ছিনতাইকারীদল তার দুটি মোবাইল সেট ও সঙ্গে থাকা এক হাজার দুইশ টাকা ছিনিয়ে নেয়। টাকা দিতে দেরি করায় রামদার উল্টাপিঠ দিয়ে পেটায় তাকে’।

তিনি আরও জানান, ছিনতাইকারীরা গফরগাঁও ও ফাতেমানগর স্টেশন থেকে যাত্রীবেশে ট্রেনের ছাদে উঠে। ছিনতাই শেষে ময়মনসিংহ স্টেশন থেকে ১০০ গজ দূরে চলন্ত ট্রেন থেকে নেমে পড়ে।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানার ওসি মো. মোশরারফ হোসেন বলেন, ছিনতাইয়ের শিকার ও আহতদের থানায় অভিযোগ দিতে বলেছি। ছিনতাইকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

আজকের পত্রিকা/আরবি/এমএআরএস