নিখোঁজ নাইটগার্ড ও ফরিদপুর উচ্চ বিদ্যালয়।

জেলা শহরের ফরিদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী নিখোজ। স্কুলের প্রধান শিক্ষকের দরজার সামনে এবং স্কুলের বারান্দার মেঝেতে রক্ত জমে আছে। এদিকে পরিবার ও শিক্ষকদের ধারনা তাকে মেরে লাশ গুম করে ফেলা হয়েছে অন্য কোথাও।

নিখোজ নৈশ প্রহরী ইয়াকুব (৩৭) ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা উপজেলার পশ্চিম বিলনালিয়া গ্রামের আঃ ছালাম সেকের ছেলে। তার স্ত্রীসহ ২ পুত্র সন্তান রয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শামিমা শিমু বলেন, বছর দুয়েক হলো সে স্কুলের নৈশ প্রহরী হিসেবে কাজ শুরু করেছে। মঙ্গলবার সকালে আমি স্কুলে এসে দেখি রুমের সামনে রক্তের দাগ। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশসহ সবাইকে জানাই। তারাও এসে সব জায়গায় তল্লশী করে কোথাও তার খোঁজ পাওয়া যায়নি। পরে পরিবারের কাছে জানালে তারাও জানে না বলে জানায়।

নিখোজ ইয়াকুবের স্ত্রী সখিনা বেগম জানান, সে বাড়ীতে যায়নি, স্কুলের ফোন পেয়ে আমরা এখানে এসেছি। আত্বীয় স্বজনসহ অন্যসব জায়গায় খোজঁ নিয়েছি কোথাও তাকে পাওয়া যাচ্ছে না ।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ এএফএম নাসিম জানান, আমরা খবর পেয়ে সকালেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। স্কুলের প্রধান শিক্ষকের রুমের সামনে বেশ খানিকটা রক্তের প্রলেপ ছড়িয়ে রয়েছে যা খুবই রহস্যজনক। এ ঘটনায় জোর তদন্ত চালানো হচ্ছে ।

ইয়াকুব আলী তুহিন/ফরিদপুর