মরদেহ। প্রতীকী ছবি

ফরিদপুর শহরে রিনা বেগম (২২) নামের এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর থেকে ওই গৃহবধূর স্বামী ট্রাকচালক মো. হাসান পলাতক রয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রিনা বেগম ফরিদপুরের সালথা উপজেলার কুমারপট্টি গ্রামের মো. শাহজাহানের মেয়ে।

নয় বছর আগে একই উপজেলার রামকান্তপুর গ্রামের মো. হাসানের সঙ্গে বিয়ে হয় রিনার। তাদের ৫ বছরের একটি মেয়ে ও ৩ বছরের একটি ছেলে রয়েছে। বেশ কয়েক বছর তারা চরকমলাপুরে ভাড়া বাসায় বসবাস করছিলেন।

নিহতের ভাই মো. রাজীব জানায়, রিনা ও তার স্বামীর মধ্যে পারিবারিক কলহ চলছিল। রাতে দুই পরিবারের লোকদের উপস্থিতিতে কলহ মিমাংসা করে সবাই নিজ নিজ বাসায় ঘুমতে যান। সকালে খোঁজ নেওয়ার জন্য তার মা জোলেখা বেগম রিনার ঘরে গেলে ঘরের ভেতর রিনাকে পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার করেন। পরে আশপাশের লোকজনের সহায়তায় রিনাকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক মো. বেলাল হোসেন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই নিহতের স্বামী হাসান পলাতক রয়েছেন।