পেলান্টি শুটে করা গোলে অপরাজিত থেকে প্রিমিয়ার লীগের শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধর করলো বসুন্ধরা কিংস।ছবি সংগৃহীত

পেনাল্টি শুটে করা গোলে অপরাজিত থেকে প্রিমিয়ার লীগের শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করলো বসুন্ধরা কিংস। এর আগের চারটি খেলায় একক আধিপত্ব নিয়ে মাঠে থাকলেও ১৪ ফেব্রুয়ারি নীলফামারী শেখ কামাল স্টেডিয়ামে রহমতগজ্ঞ মুসলিম ফেন্ডস সোসাইটির সাথে এলোমেলো খেলায় জয় পায় বসুন্ধরা কিংস।

ছয় ম্যাচে পাঁচ জয় ও এক হারে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে সবার উপরে ছিল আবহানী ঢাকা। আজ ১-০ ব্যবধানে জয়ে পাঁচ ম্যাচের পাঁচটিতে অপরাজিত থেকে আবহানীর সমান পয়েন্ট নিয়ে আবারো শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করলো বসুন্ধরা কিংস।

খেলা শুরুর চার মিনিটেই হলুদ কার্ড পায় রহমতগজ্ঞ মুসলিম ফেন্ডস সোসাইটির সুজন মিয়া। ১৩ মিনিটে কিংসের ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড় মারকোস কোস্টার একটি হেড অসাধারণভাবে রুখে দেয় রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক তিতুমীর চৌধুরী।

এরপর ১৫ মিনিটে আরেকটি হলুদকার্ড পায় নাইজেরিয়ান ডামিএন ছিগোইজ উডেহ। কোনো দলেই খেলায় নৈপুণ্য ছড়াতে না পারায় এলোমেলো খেলায় শূন্য গোল নিয়ে প্রথমার্ধ শেষ করে দু’দলেই। দ্বিতীয়ার্ধে প্রথমেই মরিয়া হয়ে উঠে অস্কার ব্রেুাজেনের শিষ্যরা।

চার মিনিটে কিংসের ব্রাজিলিয়ান জায়ান্ট মারকোস কোস্টা বল নিয়ে রহমতগজ্ঞের ডি-বক্সের ভিতর ঢুকে গেলে নাইজেরিয়ান মনডে ওসাগিজ অবৈধভাবে বাধা দেয় তাকে। এতেই রেফারির বাঁশি বেজে উঠে। ওসাগিজ পায় হলুদ কার্ড আর বসুন্ধরা পায় পেনাল্টি। কিরগিকিস্থানের মিডফিল্ডার বখতিয়ার দুইশোবেকুভের প্যানাল্টি শুটে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় বসুন্ধরা কিংস।

এরপর গোলশোধ দিয়ে মরিয়া হয়ে উঠে রহমতগজ্ঞের খেলোয়াড়রা। প্রায় ১৫ মিনিট ডিফেন্সিভ খেলার পর ব্যবধান বাড়াতে আক্রমণ বাড়ায় কলিনড্রেস, বখতিয়ার ও মতিন মিয়ারা। আর কোনো গোল না হওয়ায় ১-০ ব্যবধানে খেলা শেষ হয়। এতে পাঁচ ম্যাচে পাঁচ জয়ে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের সবার উপরে উঠে যায় বসুন্ধরা কিংস আর ছয় ম্যাচে তিন ড্র ও তিন হারে সাত পয়েন্ট নিয়ে ১০ নম্বরেই থেকে গেল রহমতগজ্ঞ।

আজকের পত্রিকা/ইয়াছিন মোহাম্মদ সিথুন/নীলফামাী