গ্রেফতার দুই আসামি।

কুমিল্লায় রাশেদ নামে এক শ্রমিক খুনের ঘটনার ১৬ ঘণ্টার মধ্যেই রাসেল ও আরিফ নামে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা পুলিশকে জানিয়েছেন, একজন মেয়ের সঙ্গে দুইজন ছেলের প্রেমের দ্বন্দ্বের জের ধরেই রাশেদ হোসেনকে (১৫) হত্যা করা হয়েছে।

৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির বরাত দিয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

পুলিশ সুপার জানান, কুমিল্লা নগরীর গোবিন্দপুর এলাকার মৃত আবদুর রশিদের ছেলে রাশেদ সদর দক্ষিণ উপজেলায় ফরিদ নেটস্ নামে একটি ফ্যাক্টরিতে শ্রমিকের কাজ করতেন।

গত রবিবার বিকালে ফ্যাক্টরি থেকে বের হয়ে তিনি আর বাসায় ফেরেননি। ২৯ এপ্রিল সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সদর দক্ষিণ উপজেলার ফুলতলী এলাকা থেকে গলাকাটা অবস্থায় রাশেদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় রাশেদের বোন নিপা আক্তার বাদী হয়ে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর অভিযানে নামে পুলিশ। তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ঘটনার সঙ্গে জড়িত দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- নিহত রাশেদের একই ফ্যাক্টরির সহকর্মী জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মানিকপুর গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের ছেলে মো. রাসেল (১৮) এবং একই উপজেলার বানীপুর গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে আরিফ (১৮)।

পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের জানান, জিজ্ঞাসাবাদে রাসেল জানিয়েছেন, একজন মেয়ের সঙ্গে নিহত রাশেদের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ওই মেয়েকে রাসেলও পছন্দ করতো। তাই ওই মেয়ের জীবন থেকে রাশেদকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য রাসেল ও তার বন্ধু আরিফ ২৮ এপ্রিল রবিবার বিকালে ফ্যাক্টরি থেকে কৌশলে রাশেদকে ডেকে নিয়ে যায়।

এরপর ওই দিন রাতে তাকে জবাই করে হত্যা করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে একটি চাকু, ব্লেডসহ বিভিন্ন আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। দুপুরে তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আজকের পত্রিকা/এমএআরএস