মরদেহ। প্রতীকী ছবি

প্রেমিককে বিয়ে করতে না পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে প্রেমিকা।

রোববার (৮ ডিসেম্বর) বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা অরুয়াইল ইউনিয়নের ধামাউড়া পূর্বপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার অরুয়াইল ইউনিয়নের ধামাউড়া পূর্বপাড়ার ভ্যান চালক মস্তু মিয়ার মেয়ে গার্মেন্টস কর্মী উজ্জলা বেগম (২৬) প্রায় এক বছর ধরে প্রেম করে আসছিল একই এলাকার কাঁচামাল ব্যবসায়ী আঞ্জু মিয়ার ছেলে সিএনজি চালক কদর মিয়ার (২৫) সঙ্গে। সে সুবাদে গার্মেন্টকর্মী উজ্জলা বেগম বিভিন্ন সময় তার প্রেমিককে টাকা কর্জ দেয়।

গত ৫ ডিসেম্বর তাকে বিয়ে করবে বলে ঢাকা থেকে খবর দিয়ে আনে প্রেমিক কদর মিয়া। কিন্তু শুক্রবার জুমার নামাজের পর উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে বিয়ে করতে অস্বীকার করে প্রেমিক কদর আলী এবং কর্জের ২০ হাজার টাকার কথাও অস্বীকার করে। এতে ভারাক্রান্ত হয়ে বাড়িতে ফিরে আসে উজ্জলা বেগম।

শনিবার বিকেলে বাবার বসত ঘরের মধ্যে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে সে। খবর পেয়ে সরাইল থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে রাতেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

মেয়ের বাবা মস্তু মিয়া জানান, আমার মেয়েকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে বিভিন্ন সময়ে টাকা নিয়েছে। বিয়ে করার জন্য খবর দিয়ে বাড়িতে আনে কদর মিয়া। কিন্তু পরিবারের লোকজনের বাধার কারণে বিয়ে করতে অসম্মতি জানায় কদর মিয়া।

এ ঘটনায় মস্তু মিয়া বাদী হয়ে সরাইল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাদত হোসেন টিটু জানান, ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।