প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন সফররত ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর। মঙ্গলবার বিকেলে সাক্ষাতকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণপত্র তুলে দেন জয়শঙ্কর।

পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ বিষয়ে ব্রিফ করেন।

তিনি জানান, অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীকে দ্বিপাক্ষিক সফরে ভারতে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ আমন্ত্রণের জন্য নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

এর আগে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার অমীমাংসিত তিস্তা চুক্তি হবে বলে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেন, এ চুক্তি নিয়ে আগের অবস্থানে অনড় ভারত। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক আমরা এ চুক্তি করে যাবো।

মঙ্গলবার দুপুরে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনায় বাংলাদেশ-ভারত দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জয়শঙ্কর বলেন, ৫৪টি নদী নিয়ে কীভাবে নিজেদের স্বার্থ রক্ষা করা যায়, তার ফর্মুলা খুঁজছে দুই দেশ। পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে অভিন্ন নদীর পানিবন্টন সমস্যার সমাধান করা হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আসামে নাগরিকপঞ্জি বা এনআরসি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এ নিয়ে কথা বলার কিছু নেই।

ভারত রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসন চায় উল্লেখ করে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ-ভারত-মিয়ানমারের স্বার্থে এটি জরুরি। রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসনে ভারত সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে।