বাংলাদেশ-ভারত টেস্ট ম্যাচ উপলক্ষে কলকাতায় অবস্থান করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলি এবং দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে এই সফরে গিয়েছেন তিনি। ক্রিকেট দেখা উপলক্ষে এ সফর হলেও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এ সফরে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির তিস্তা চুক্তি বিষয়ক কোনো আলোচনা হবে কিনা, এ নিয়ে জল্পনা চলছিল। যদিও সফরের আগে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, এটা শুধুই ক্রিকেট দেখতে যাওয়ার সফর।

যদিও ২১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে মমতা ব্যানার্জি জানিয়েছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আমার তিনবার দেখা হবে। দুপুরে ইডেনে, সন্ধ্যায় তাজ বেঙ্গল হোটেলে, পরে আবার ইডেনে- সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে।’

এদিকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে তিস্তা চুক্তির বিষয়টি সম্ভবত হাসিনা উত্থাপন করবেন না। সূত্র জানায়, তিস্তা নিয়ে মোদী সরকারের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে ঢাকা। এ বিষয়ে সহমত তৈরির চেষ্টা করা হচ্ছে বলে কয়েক মাস আগে হাসিনার দিল্লি সফরের সময় আশ্বস্ত করে ভারত।

তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্ট জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গের স্বার্থ ক্ষুণ্ণ হয়, এমন কোনো চুক্তি তিনি চান না। মমতার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর মধুর সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বাংলাদেশ পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সেই আন্তরিকতাকে আরও বাড়িয়ে তোলাই হাসিনার উদ্দেশ্য। তাই সৌজন্যের আবহ রেখেই দুই নেত্রী কথা হবে।

আজকের পত্রিকা/সিফাত