সিরাজগঞ্জ জেলার কামারখন্দ উপজেলার পাইকোশা গ্রামের ১৬ বছরের এক মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরীর হাত-পা বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন ওই কিশোরীর বাবা।

বুধবার সন্ধ্যায় মামলা দায়েরের পর ওই দিন মধ্য রাতে উপজেলার পাইকোশা বাজার থেকে অভিযুক্ত সুলতান মাহমুদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

অভিযুক্ত সুলতান মাহমুদ ওই কিশোরীর পাশের বাড়ির হযরত মওলানার ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার সকালে মানসিক প্রতিবন্ধী ওই কিশোরী বাড়ির বাইরে খেলা করছিলো।

এসময় বাড়ির পাশ্ববর্তী মুদী দোকানদার সুলতান মাহমুদ তাকে নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। ঘরের মধ্যে নিয়ে ছাগলের রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করে।

এসময় প্রতিবন্ধি কিশোরী চিৎকার করলে ওড়না দিয়ে তার মুখ চেপে ধরা হয়। পরে বাড়ি ফিরে এসে ঘটনাটি তার মা ও দাদাকে জানায় ওই কিশোরী।

বাদী পক্ষ গরীব অসহায় হওয়ায় স্থানীয় প্রভাবশালীরা ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। পরে ঘটনাটি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর এলাকায় বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে বুধবার সন্ধ্যায় ওই কিশোরীর বাবা কামারখন্দ থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর সুলতান মাহমুদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

কামারখন্দ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) পলাশ চন্দ্র দেব জানান, মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

অভিযুক্ত সুলতান মাহমুদকে বুধবার মধ্য রাতে পাইকোশা বাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।