অপ্পো ফোন। ছবি: অপ্পো

গ্লোবাল স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো এবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে বাংলাদেশের বাজারে নিয়ে আসে পোর্ট্রেইট ফটোগ্রাফিকে ভিন্ন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া অপো এফ১১ প্রো।  ৪৮ মেগাপিক্সেল পোর্ট্রেইট ক্যামেরা, স্বল্প আলোতেও ছবি তোলার উপযোগী সেন্সর আর রাইজিং প্ল্যাটফর্মে সেলফি ক্যামেরাযুক্ত প্রায় বেজেল-বিহীন এই ফোনটি বাজারে নিয়ে আসার ঘোষণা করা মাত্রই এই ফোনটিকে ঘিরে তৈরি হয় বিপুল আগ্রহ।  ফোনটি বাজারে আনার প্রায় তিন মাস হয়ে গেলেও বাজারে চাহিদার শীর্ষে রয়েছে এই ফোনটি।  বলা যায় যেই আগ্রহ এই ফোনটিকে ঘিরে জন্ম নিয়েছিলো, সেটির পুরোটাই পূরণে সক্ষম হয়েছে এটি।

আকর্ষণীয় নকশা, গ্র্যাডিয়েন্ট রঙ, নচবিহীন ডিসপ্লে এবং নিজ থেকেই আড়াল থেকে উঠে আসা রাইজিং প্ল্যাটফর্মে থাকা সেলফি ক্যামেরাসমৃদ্ধ এই ফ্ল্যাগশিপ ফোনটির বর্ননায় একে বেশ উচ্চমূল্যের ফোন মনে হতেই পারে।  তবে এতোসব ফিচার সমৃদ্ধ ফোনটি কিন্তু পাওয়া যাচ্ছে বেশ সহনীয় দামেই।  বিশেষ করে স্মার্টফোন ফটোগ্রাফির জন্যে যারা ফোন কেনার কথা ভাবছেন, তারা দেখে নিয়ে পারেন অপো এফ১১ প্রো এর ক্যামেরার বিভিন্ন উল্লেখযোগ্য দিক।

ফটো সেন্সরঃ

অপো এফ১১ প্রো এর প্রাইমারী ক্যামেরা হিসেবে রয়েছে ১/২ ইঞ্চি সেন্সরযুক্ত ৪৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।  এছাড়া ৫ মেগাপিক্সেল এর দ্বিতীয় ক্যামেরাতে রয়েছে ১/৫ ইঞ্চি ডেপথ সেন্সর, ফলে ছবিতে সাবজেক্ট ব্যতীত পেছনের পটভূমি ঝাপসা হয়ে ডিএসএলআর ক্যামেরার মতো ছবি তুলতে সক্ষম এই ফোনটি।  এই ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরায় রয়েছে ১/৩.১ ইঞ্চি সেন্সরের ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

পিক্সেল এর আকারঃ

এফ১১ প্রো এর ৪৮+৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরায় রয়েছে ০.৮ ন্যানোমিটার আকারের পিক্সেল যা টেট্রাসেল প্রযুক্তির মাধ্যমে ৪টি পিক্সেলের সমন্বয়ে দ্বিগুণ আকারের পিক্সেল এর আউটপুট দিয়ে সক্ষম।  টেট্রাসেল প্রযুক্তি থাকায় স্বল্প আলোতেও নয়েজ-মুক্ত ঝকঝকে ছবি তুলতে সক্ষম এই ক্যামেরাটি।  এছাড়া এর ডেপথ সেন্সর ক্যামেরায় রয়েছে ১.১২ ন্যানোমিটার আকারের পিক্সেল।  আর এর রাইজিং প্ল্যাটফর্মে থাকা সেলফি ক্যামেরাতেও থাকছে ১.০ ন্যানোমিটার ফটো পিক্সেল।  ফলে যেকোন আলোতেই সুক্ষ ডিটেইল সমৃদ্ধ ছবি তুলতে সক্ষম অপো এফ১১ প্রো।

ক্যামেরা অ্যাপ এর নানা ফিচারঃ

অপো এফ১১ প্রো এর ক্যামেরায় রয়েছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাযুক্ত বিশেষ সফটওয়্যার যা ক্যামেরার সামনে থাকা সাবজেক্টকে বিশ্লেষণ করার মাধ্যমে ক্যামেরা সেটিং সেভাবে সাজিয়ে নেয়।  ফলে অবস্থান ও আলোর তারতম্য ভেদে ক্যামেরা সেটিং নিজ থেকেই পরিবর্তন হয় বলে যেকোন অবস্থাতেই দারুণ ছবি আউটপুট দিতে সক্ষম অপো এফ১১ প্রো এর ক্যামেরা।  এছাড়াও সাধারণ ছবি, পোর্ট্রেট এবং ভিডিও ধারনের জন্যে অ্যাপে রয়েছে তিনটি ভিন্ন ভিন্ন মোড। এছাড়াও এতে রয়েছে বিশেষ ড্যাজেল কালার যা এইচডিআর ছবি ধারণের এক উন্নততর সংস্করণ।  এর মাধ্যমে বেশ কয়েকটি ছবিকে একত্র করে সবকটি ছবি একত্র করে দারুণ ছবি আউটপুট দিতে পারে এর অ্যাপটি।  এছাড়াও একটি হ্যামবার্গার মেন্যুতে রয়েছে আরো বেশকটি ছবি তোলার মোড যেমন এক্সপার্ট (ম্যানুয়াল সেটিং), প্যানারমিক, টাইম-ল্যাপ্স, স্লো-মোশন এবং আল্ট্রা নাইট মোড।  আল্ট্রা-নাইড মোডে রয়েছে লং-এক্সপোজারে রাতের ছবি তোলার সুবিধা।

দেশের সবখানেই অপো’র আউটলেট এবং মোবাইল মার্কেট ছাড়াও বিভিন্ন ই-কমার্স সাইটগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে অপো এফ১১ প্রো পাওয়া যাচ্ছে ৩৬,৯৯০ টাকায়।

আজকের পত্রিকা/এমইউ