কাজী ফয়সাল
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

প্রতীকী ছবি

রাজধানীর শাহবাগে পুলিশের শর্টগানের গুলিতে মাসুদ (৪৫) নামের এক ব্যক্তি আহত হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য দিচ্ছে পুলিশ ও মো. মাসুদ নামের গুলিবিদ্ধ একজন। ৯ ফেব্রুয়ারি শনিবার দিনগত রাতে গুলির ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ১০ ফেব্রুয়ারি রবিবার ভোরের দিকে মাসুদকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

পুলিশ বলছে, ছিনতাই করার সময় পুলিশি বাধা পেয়ে মাসুদসহ ৩ ছিনতাইকারী হামলার চেষ্টা চালায়। পরে আত্মরক্ষার্থে গুলি চালিয়ে এক ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করা হয়।

অন্যদিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মাসুদ বলছে, তার বাসা কেরানীগঞ্জের জিনজিরা চরাইল এলাকায়। সেখানে তার বোরকা তৈরির কারখানা রয়েছে। স্ত্রীর নাম কোহিনুর বেগম। তাদের ৪ মেয়ে ১ ছেলে সন্তান রয়েছে। স্থায়ী ঠিকানা ঢাকার নবাবগঞ্জ জেলায়।

এ বিষয়ে শাহবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল হাসান জানান, ৯ ফেব্রুয়ারি শনিবার রাতে মোটরসাইকেলে করে ৩ ছিনতাইকারী শাহবাগ এলাকায় ছিনতাই করছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ শিশুপার্কের ইটগেটের সামনে ব্যারিকেড দিয়ে তাদের গতিরোধ করে। এতে ছিনতাইকারীরা চাপাতি নিয়ে পুলিশের ওপর আক্রমণ চালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি ছোড়ে। এতে ১ ছিনতাইকারী গুলিবিদ্ধ হয়। বাকি ২ ছিনতাইকারী দ্রুত পালিয়ে যায়। তাদেরকে খোঁজা হচ্ছে।

ওসি আবুল হাসান জানান, ঘটনাস্থল থেকে ১টি মোটরসাইকেল জব্দ করা ছাড়াও ১টি চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। জব্দকৃত মোটরসাইকেলটি অন্য কোথাও থেকে ছিনতাই করে নিয়ে এসেছিলো তারা। মাসুদের বাম পায়ের হাঁটুর নিচে শর্টগানের গুলি লেগেছে।

পুলিশের গুলিতে আহত মাসুদ দাবি করছে, ৯ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৬ টার দিকে শাহবাগে বইমেলার কাছ থেকে পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায়। পরে চোখ বেঁধে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে তার বাম পায়ে গুলি করা হয়। আহত মাসুদ ঢামেক হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি বিভাগে পুলিশ পাহারায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

আজকের পত্রিকা/কেএফ