পিরোজপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মো. এনায়েত হোসেন মোল্লা (৫৬) নামের একজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

নিহত এনায়েত মোল্লা পিরোজপুর পৌর সভার ১নং ওয়ার্ডের খানাকুনারিয়া এলাকার মৃত আব্দুল খালেক মোল্লার পুত্র।

মঙ্গলবার (৩০জুন) সকালে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহতের ছেলে মো. আল-আমীন মোল্লা জানান, স্থাণীয় মতলেব শেখ অকারনে আমাদের বাড়ির সামনের একটি জমি নিয়ে বিরোধ করে আসছিলো। এ নিয়ে একাধীকবার শালিস-বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

গত শনিবার (২৭জুন) স্থাণীয় সাবেক কমিশনার মিশু ও সাবেক এক ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোশারেফ হোসেন সহ স্থাণীয় গন্যমান্যদের উপস্থিতিতে শালিশ-বৈঠক হয়।

এ সময় শালিশ-বৈঠকে থাকা লোকজন তাকে (মতলেব শেখ ) আমাদের আর অহেতুক হয়রানী করতে নিষেধ করেন। এতে সেখানে বসে মতলেব শেখ আমার পিতাকে দেখিয়ে দেয়ার হুমকী দেন।

এর সূত্র ধরে গত রবিবার (২৮জুন) বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে আমার পিতা জমিতে ধানের বীজ রোপন করে বাড়ি ফিরে ভাত খেয়ে ঘরে বসে ছিলেন।

এমন সময় মতলেব শেখ ও তার শ্বশুর খলিল মোল্লার নেতৃত্বে ১৩/১৪ জন আমাদের ঘরে ঢুকে প্রথমে আমার পিতা এনায়েত মোল্লাকে কোপায়।

এসময় আমার পিতার উপর হামলায় বাধা দিলে হামলাকারীরা আমার মা আকলিমা বেগম (৪৫) ও বোন খাদিজা বেগম (১৮) কেও মারপিট করে।

এ সময় ঘরে থাকা মালামাল ও ঘরের বেড়া সহ ঘর ভাংচুর করে। পরে আমার বাবাকে ঘর থেকে বের করে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে।

রবিবার রাত ১১টার দিকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (৩০জুন) সকালে তার মৃত্যু হয়।

জেলা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডাক্তার মো. নিজাম উদ্দিন জানান, তাকে গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিলো।

পরে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছিলো। তার মাথায়, পায়ের উরুতে, কপালের ভুরুতে, পিঠে দাঁড়ালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

থানা পুলিশের অফিসার ইন চার্জ মো. নুরুল ইসলাম বাদল জানান, ওই এনায়েত হোসেনকে কুপিয়ে আহত করার ঘটানায় ওই দিন রাতে তার ছেলে আল-আমীন মোল্লা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তার মৃত্যুর খবর শুনেছি। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

  • 25
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    25
    Shares