২০১৯ সালের জন্য অস্ট্রিয়ান লেখক পিটার হ্যান্ডক্যের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পাওয়া নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে আলবেনিয়া, বসনিয়া এবং কসোভো।

হ্যান্ডক্যকে এ দেশগুলো ‘বলকানের কসাই’ নামে কুখ্যাত সার্ব নেতা স্লোবোদান মিলোসেভিচের কট্টর সমর্থক বলে মনে করে। তাছাড়া এই অস্ট্রিয়ান লেখক ২০১৪ সালে নোবেল পুরস্কার বিলোপের বিতর্কিত দাবি তুলেও সমালোচিত ছিলেন।

বিশ্ব গণমাধ্যমগুলোর বরাতে জানা যায়, নব্বইয়ের দশকে যুগস্লাভ যুদ্ধের সময় হ্যান্ডক্য সার্বদের সমর্থন দেন এবং তাদের পক্ষে জোর প্রচার চালান। ওই সময় তিনি সার্বদের অসহায় অবস্থার বর্ণনা করতে তাদের নাৎসি সরকারের অধীনে ইহুদিদের সঙ্গে তুলনাও করেন। যদিও পরে তিনি তার ওই বক্তব্য অস্বীকার করেছিলেন।

২০০৬ সালে মিলোসেভিচের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিয়েও দারুণ বিতর্কিত হয়েছিলেন হ্যান্ডক্য। মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের অভিযোগে বিচার চলার মাঝেই মিলোসেভিচের মৃত্যু হয়। তার আগে মিলোসেভিচ আদালতের কাছে তার পক্ষের সাক্ষী হিসেবে হ্যান্ডক্যকে চেয়েছিলেন।

১৯৯৬ সালে হ্যান্ডক্যর ভ্রমণকাহিনী ‘এ জার্নি টু দ্য রিভার্স: জাস্টিস ফর সার্বিয়া’ প্রকাশিত হলেও তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি হয়। এছাড়া বেলগ্রাদে নেটোর বিমান হামলার প্রতিবাদে ১৯৯৯ সালে তিনি জার্মানির অভিজাত বুকার পুরস্কার ফিরিয়ে দেন।এভাবে একের পর এক বিতর্কের জন্ম দেওয়া ব্যক্তিকে নোবেল পুরস্কারের জন্য বেছে নেওয়া তাই ভালোভাবে নেননি আলবেনিয়া, বসনিয়া এবং কসোভোর বাসিন্দারা।

আজকের পত্রিকা/সিফাত