কালিগঞ্জ থানা।

চলাফেরা সন্দেহজনক হওয়ায় সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ বাসষ্ট্যান্ডে এক প্রেমিক যুগলকে আটক করেছে স্থানীয় জনতা। ১৫ মে বুধবার বেলা একটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনার খবর পেয়ে কালিগঞ্জ থানা পুলিশ তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ঘটনায় কালিগঞ্জ থানায় আটক রয়েছে প্রেমিক আলামিন হোসেন (২৪)। সে তালা উপজেলার খেশরা ইউনিয়নের মুড়াগাছা গ্রামের আজহারুল ইসলামের ছেলে। একই গ্রামের এলাকার মুজাহিদ হোসেন। তার দু’জন একে অপরের বন্ধু। আটক অপর যুবক মোটর সাইকেল চালক সাতক্ষীরা সদরের নারকেলতলা এলাকার ইসমাইল হোসেন।

প্রেমিকা মিম পারভীন (১২) কালিগঞ্জ উপজেলার মুকুন্দপুর গ্রামের মনিরুল ইসলামের মেয়ে ও ধূলিহা আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী।

প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় নুর ইসলাম বাবু জানান, কালিগঞ্জ বাস ষ্ট্যান্ডে তিনটি ছেলে ও একটি মেয়ে ঘোরাফেরা করছিল। তাদের চলাফেরা দেখে সন্দেহ হওয়ায় ছেলে তিনজনকে আটক করে জনগণ। মেয়েটিকেও পার্শ্ববর্তী একটি বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখে।

পরে ঘটনার সংবাদ পেয়ে কালিগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই সোহেল তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

ঘটনার বিষয়ে কালিগজ্ঞ থানার উপ পরিদর্শক সোহেল হোসেন বলেন, একটি মেয়ে ও তিনটি ছেলেকে আটক রাখা হয়েছে এমন সংবাদে ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ছেলে তিনজকে একটি বাসের মধ্যে আটকে রাখে স্থানীয়রা। মেয়েটি পার্শ্ববর্তী একটি বাড়িতে আটক অবস্থায় ছিল। পরে তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

এ বিষয়ে কালিগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার সুধাংশু বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েটি জানিয়েছে আটক আলামিন হোসেন নামের ছেলেটির সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক। প্রেমের সুত্র ধরে তারা অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি দিবে বলে বাস টার্মিনাল এলাকায় অবস্থান করছিল। এমন সময় স্থানীয় জনগণ তাদের আটক করে। তবে কোথায় তারা কোথায় যাচ্ছিল সেটি এখনো জানা যায়নি। মেয়ে ও ছেলে উভয় পরিবারের সদস্যদের খবর দেওয়া হয়েছে। তারা আসলেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

বৈশাখী/সাতক্ষীরা