পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া, আরিচা-কাজিরহাট ফেরি ও লঞ্চ ঘাট পরিদর্শন করলেন বাংলাদেশ আভ্যান্তরিন নৌ পরিবহণ কর্তৃপক্ষ বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর এম মাহবুব-উল ইসলাম।

শুক্রবার সকালে তিনি প্রথমে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ফেরি ও লঞ্চ ঘাট, এরপর রাজবাড়ির দৌলতদিয়া ফেরি ও লঞ্চ ঘাট, দুপুরে আরিচা ও কাজিরহাট লঞ্চ ঘাটের বর্তমান সার্বিক পরিস্থিতি পরিদর্শন করেন।

এসময় তার সাথে ছিলেন, বিআইডব্লিউটিএর চীপ ইঞ্জিনিয়ার মহিদুল ইসলাম, পরিচালক বন্দর শফিকুল ইসলাম, পরিচালক নৌ নিট্রা বিভাগ আবু জাফর হাওলাদার, পরিচালক নৌ সংরক্ষণ ও পরিচালনা বিভাগ মো. শাজাহান হোসেন, ডিপুটি চীপ ইঞ্জিনিয়ার সাইদুর রহমান, নৌসওপ বিভাগের যুগ্ম পরিচালক আব্দুর রহমি, নির্বাহী প্রকৌশলী মো. নিজাম উদ্দিন পাঠান, পোর্ট অফিসার সেলিম রজো ও সহকারী পরিচালক নৌ- নট্টিা মো: ফরদিুল ইসলাম।

পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, পানি বাড়ার কারণে ফেরি ঘাটগুলো শিফট করতে হয়েছিল। এখন সব ঘাটগুলো ঠিক আছে। আমাদের বিআইডব্লিউটিএ,র কর্মকর্তা এবং কর্মচারীগণ অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন এখনও করে যাচ্ছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। সকল ঘাট এপারে (পাটুরিয়া) ৪টি ফেরি ঘাট ১টি লঞ্চ ঘাট ওপারে (দৌলতদিয়া) ৬টি ফেরি ঘাট, ১টি লঞ্চ ঘাট , আরিচা লঞ্চ ঘাট ও কাজিরহাট লঞ্চ ঘাট দেখে আসলাম এখন সব কিছু ঠিক আছে। তবে হা কিছু সমস্যা ছিল ফেরির, কারণ নদীতে এখন অনেক স্রোত। কিন্তুু আমাদের সবগুলো ঘাট ঠিক আছে। নাব্যতার কোন সমস্যা নেই। হঠাৎ করে যদি কোন জায়গায় কোন রকম নাব্যতার সংকট দেখা দেয় তাহলে আমাদের ড্রেজার প্রস্তুুত আছে এবং কর্মকর্তা –কর্মচারী রয়েছে তাৎক্ষণিক ড্রেজিং করে নৌপথ সচল করে দেয়া হবে।

এছাড়া আগামীতে পানি আরো বাড়তে পারে সে জন্য এপারে এবং ওপারে আমরা বালুর বস্তা,ইট এবং ইটের সুরকি দিয়ে ঘাটগুলো উচু করে দেয়া হবে। ভবিষ্যতে আমরা আগামী ২১ তারিখে মাননীয় প্রতি মন্ত্রী মহোদয় ও মন্ত্রাণালয়ের সচিব মহোদয়সহ আগামী ঈদের প্রস্তুুতি নিচ্ছি। এখন মন্ত্রী ও সচিব মহোদয় সার্বিক পরিস্থিতির সার্বক্ষণিক খোঁজ খোবর নিচ্ছেন।

আরিচায় ফেরি ঘাট চালুর ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বললেন, আরিচা ফেরি ঘাট নির্মাণের জন্য ৩শ ৮০কোটি টাকার একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে যা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এটি অনুমোদন হলেই আমরা কাজ শুরু করবো। আপনারা জানেন যে এটি গোয়ালন্দের সাথে কানেকটেড হবে। বেসিক্যালি হাইওয়ে এবং রেলওয়ের যাত্রীদের যাতায়াত ও মালামাল পরিবহনের সুবিধার্থে এ ঘাটটি করা হবে। অনুমোদন হলেই আরিচা ফেরি ঘাটের কাজ শুরু করার আশ্বাস দেন তিনি।

শাহজাহান বিশ্বাস/মানিকগঞ্জ