পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-রুটে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ

ঈদুল আযহার আর মাত্র তিন দিন বাকী। রাজধানী ঢাকার সাথে দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট।

ঘাট এলাকায় যানজট মুক্ত রাখতে, ঘরমুখো যাত্রী, যানবাহন পারাপার নিরাপদ ও নির্বিঘ্নে যাতায়াত নিশ্চিত করতে ঈদের তিন দিন আগে এবং তিন দিন পড়ে শুধু কোরবানীর পশুবাহী ট্রাক বাদে অন্যসব পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ফলে শুক্রবার থেকে এ নৌ-রুটে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

যাত্রী বহনকারী যানবাহনের চাপ কম থাকলে বিশেষ ব্যাবস্থায় অগ্রাধিকারের ভিত্তিত্বে পঁচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার করা হবে বলে জানা গেছে।

বিআইডব্লিউটিসি’র ম্যানেজার মহিউদ্দিন রাসেল জানান, বর্তমানে উক্ত নৌ রুটে ১০ টি রো,রো (বড়)এবং ৩টি কে-ট্ইাফ (ছোট) এবং ৭টি ইউটিলিটি ফেরি চলাচল করছে। যদি কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা ফেরির মেকানিকেল বা যান্ত্রিক ত্রুটি না হয় তাহলে কোন সমস্যা হবে না জানান সংশ্লিষ্টরা।

ঈদুল আযহার তিন দিন আগে ৯, ১০, ১১ আগস্ট পাটুরিয়া ঘাট দিয়ে কোরবানীর পশুবাহী ট্রাক বাদে অন্যসকল পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ থাকবে। অপরদিবে ঈদের পরে ১৩, ১৪, ১৫ আগস্ট পর্যন্ত তিন দিন দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ থাকবে।

বিআইডব্লিউটিসির এজিএম জিল্লুর রহমান জানান, ঈদের পূর্বে এবং পড়ে পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া ঘাট যানজটমুক্ত রাখতে, নির্বিঘেœ যাতায়াত করতে এবং যাত্রীদের দুর্ভোগ লাঘব করতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে ঈদের আগে পরে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ রাখার এ সিন্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যাত্রীবাহী বাস,প্রাইভেটকার ও মাইক্রোবাসসহ অন্যান্য যানবাহন পারাপারে সবচেয়ে বেশী গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, তবে যাত্রী বহণকারী যানবাহনের চাপ কম থাকলে বিশষ ব্যাবস্থায় নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যবাহী ও কাঁচামালবাহী ট্রাকগুলো পারাপার করা হবে বলে তিনি জানান।

শাহজাহান বিশ্বাস/মানিকগঞ্জ