যানবাহনের দীর্ঘলাইন

পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়ে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটে তীব্র ঘূর্নিস্রোতে ১১ টি ফেরি পারাপার বন্ধ হয়ে গেছে। কোনমতে ৬ টি ফেরি চলাচল করছে। ফেরি বন্ধ থাকায় উভয় ঘাটে সহস্রাধিক শতাধিক যানবাহন আটকে পড়ে যাত্রীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট সূত্রে জানা যায়, পদ্মা নদী অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি পেয়ে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটের মঙ্গলবার তীব্রস্রোতের গতিবেগ আরো বেড়েছে। মূল নদী থেকে লৌহজং টার্নিং এর প্রবেশ মুখে সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ ঘূর্নিবর্ত।

স্রোতের গতিবেগ বৃদ্ধি পেলে স্রোতের সাথে চলতে না পারায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ রুটের সকল ডাম্ব ফেরিসহ ১১ টি ফেরি বন্ধ করে দেয় কর্তপক্ষ। বাকি ৬ টি ফেরি দিয়ে কোনমতে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। এতে কাঠালবাড়ি ঘাটে ৬ শতাধিক যানবাহনসহ উভয় পাড়ে সহস্রাধিক যানবাহন আটকে পড়ে যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা চরম দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

গত ৪দিনে লৌহজং ফেরিসহ নৌযানগুলোও ঘূর্নিস্রোতে কোনমতে চরের সাথে ধাক্কা খেয়ে লৌহজং টার্নিং পাড়ি দিচ্ছে। শিমুলিয়া থেকে ছেড়ে আসা সকল ফেরি, লঞ্চ, স্পীডবোটগুলো উজান বেয়ে অতিরিক্ত সময় নিয়ে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে। প্রতিটি ফেরি পারাপারে দীর্ঘ সময় বেশি সময় লাগছে। এতে সময় বেশি ব্যয়ের সাথে সাথে বাড়তি জ্বালানীও খরচ হচ্ছে। কমে গেছে ফেরির ট্রীপ সংখ্যা।

আজকের পত্রিকা/শাহজাহান বিশ্বাস/মানিকগঞ্জ/মঈন উদ্দিন সুমন/মুন্সিগঞ্জ