আহছানিয়া মিশন শিশু নগরীর ৫তলা বিশিষ্টি দ্বিতীয় আবাসিক ভবনের উদ্বোধন

পঞ্চগড় জেলার সদর উপজেলার হাফিজাবাদ ইউনিয়নের জলাপাড়া এলাকায় প্রতিষ্ঠিত আহছানিয়া মিশন শিশু নগরীর ৫তলা বিশিষ্টি দ্বিতীয় আবাসিক ভবনের উদ্বোধন করা হয়েছে।

২০ জুন  বৃহস্পতিবার দুপুরে আহছানিয়া মিশন শিশু নগরীতে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প গড়ের জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) মো. আব্দুল মান্নান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের প্রেসিডেন্ট কাজী রফিকুল আলমের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প গড়ের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নাঈমুল হাছান, জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আল মামুন, কিন্ডার নট হিলফে (কেএনএইচ) জার্মানীর বাংলাদেশের কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর মারুফ মোমতাজ রুমী, ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের সাধারন সম্পাদক ড. এস এম খলিলুর রহমান, শিশু নগরীর উপদেষ্টা কমিটির সভাপতি হাফিজাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম মুসা কলিমুল্লাহ প্রধান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

আহছানিয়া মিশন শিশু নগরীর ৫তলা বিশিষ্টি দ্বিতীয় আবাসিক ভবনের উদ্বোধন

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প গড়ের জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল মান্নান বলেন, শিশুদের জীবনমান পরিবর্তনের জন্য উন্নত ভবিষ্যতের জন্য ঢাকা আহছানিয়া মিশন কাজ করে যাচ্ছেন।

আমি বিশ্বাস করি ঢাকা আহছানিয়া মিশনের এই মানবতা ইতিহাস যুগ যুগ লেখা থাকবে। আপানাদের পাশাপাশি সমাজের সামর্থ্যবান বিত্তবান ব্যক্তিবর্গ সুবিধাবি ত শিশুদের জীবনমান উন্নয়নে এগিয়ে আসবেন। শিশুরাই ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের কর্ণধার। ভবিষ্যতে এই শিশুরাই বাংলাদেশের পতাকা বহন করবে। শিশুরা সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠবে এবং তারাই দেশকে নেতৃত্ব দেবে। আহছানিয়া মিশনের যে কোন কাজে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসন সবরকমের সহযোগিতা করবে বলে আশ্বাস দেন।

 

সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের প্রেসিডেন্ট কাজী রফিকুল আলম বলেন, পথশিশুসহ সকল দরিদ্র শিশুর পুনর্বাসন ও যথাযথ বিকাশ নিশ্চিত করতে ঢাকা আহছানিয়া মিশন শিশু নগরী গড়ে তোলা হয়েছে। পথ শিশুদের সুন্দর জীবনের ভিত্তি তৈরি করতে আহছানিয়া মিশন নিরলসভাবে কাজ করছে। প্রতিটি শিশুর সামর্থ্য ও প্রতিভা বিকাশে শিক্ষা, কারিগরী প্রশিক্ষণ এবং মেধা বিকাশের নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শিশুরা জাতীয় পর্যায়ে স্ব স্ব ক্ষেত্রে অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

বক্তারা এরকম একটি মহতি উদ্দ্যেগের জন্য ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন এবং দাতা সংস্থা কেএনএইচ-জার্মানীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং শিশু নগরীর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য অর্জনে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

এর আগে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের প্রেসিডেন্ট কাজী রফিকুল আলমসহ অতিথিবৃন্দ ফিতা কেটে ৫তলা বিশিষ্টি দ্বিতীয় আবাসিক ভবনের উদ্বোধন করেন। পরে শিশু নগরীর অভ্যন্তরে বৃক্ষ রোপণ করেন অতিথিবৃন্দ।

উল্লেখ্য, এক হাজার সুবিধাবি ত শিশুদের আশ্রয় ও পূনর্বাসনের লক্ষ্য নিয়ে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন শিশু নগরী ২০১১ সালে প গড়ের জলাপাড়া এলাকায় প্রতিষ্ঠিত হয়। কেএনএইচ জার্মানীর আর্থিক সহায়তায় সুবিধাবি ত ও পথশিশুদের সমন্বিত সেবার মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদী পুনর্বাসন কাজ পরিচালিত হয়ে আসছে।

এখানে একটি ৫ তলা বিশিষ্ট আবাসিক ভবনে মোট ৪৮৭ জন শিশু সার্বিক সেবা পেয়ে আসছে। এখানকার শিশুদের বিনামূল্যে থাকা-খাওয়া, মনো-সামজিক ও  স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা ও বিনোদনসহ বিভিন্ন সেবা দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে শিশু নগরীতে একটি ৫ তলা আবাসিক ভবনে ২৭২ জন শিশু বসবাস করছে। আরও তিনশত শিশুর জন্য দ্বিতীয় আবাসিক ভবনের নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়েছে।

নুর আলম পুলক/পঞ্চগড়