ভেজাল পণ্য দেখছেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক।

নীলফামারীতে ভেজাল পণ্য ও হোটেলে অবৈধ্য প্রক্রিয়ায় খাদ্য উৎপাদন ও সংরক্ষণের দায়ে জেলা শহরের তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জরিমানা আদায় করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

১১ ফেব্রুয়ারি সোমবার দুপুরে জেলা শহরের মাধার মোড়, বড় বাজার এলাকায় ওই তিনটি দোকানে জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জোহরা সুলতানা যুথি। এর মধ্যে সুরুচি হোটেলের মালিক মিলন ইসলামের কাছে তিন হাজার টাকা, সূকর্ণা সুইটসের মালিক অমৃত কুমারের পাঁচ হাজার টাকা ও বনফুল সুইটস অ্যান্ড কনফেকশনারির মালিক সুশেন চন্দ্র রায়ের কাছে দুই হাজার ৫০০ টাকাসহ মোট ১০ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জোহরা সুলতানা যুথি বলেন, ২০০৯ এর জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৪৩, ৫১ ও ৫২ ধারায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে মেয়াদ উত্তীর্ণ খাদ্য ও বোতলজাত পানীয় জনসম্মুখে ধ্বংস করা হয়। এ ছাড়াও ওই তিন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মোট ১০ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেস স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক মো. আল-আমিন রহমানসহ স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

ইয়াছিন মোহাম্মদ সিথুন/নীলফামারী