কাজী ফয়সাল
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ছবি: সংগৃহীত

নিজের স্বাক্ষর জাল ও সম্পদের নিরাপত্তাহীনতার আশঙ্কায় জিডি করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। জিডির আবেদনে কারো নাম উল্লেখ করেননি বিরোধীদলীয় এই শীর্ষ নেতা।তবে পার্টির কয়েকজন নেতাকর্মী তার ও পরিবারের ক্ষতি করতে পারে এমন আশঙ্কায় এরশাদ জিডি করেছেন বলে একটি সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তার এক ব্যক্তিগত সহকারী জিডির বিষয় নিশ্চিত করে বলেন এরশাদ সাহেব মনে করেন যে তার পরিবারের যেকোনো সময় ক্ষতি হতে পারে আরে ক্ষতির জন্য দলীয় নেতাকর্মীরা যথেষ্ট। ২৪ এপ্রিল বুধবার দুপুর ২টার দিকে বিরোধীদলীয় নেতার প্রটোকল অফিসার এসআই বাবুল, কনস্টেবল লিজন ও আনসার সদস্য হুমায়ুন এবং তার এক ব্যক্তিগত সহকারী বনানী থানায় জিডিটি করেন।

রাজধানীর থানায় করা জিডি নাম্বার ১৫০২।জিডিতে সাবেক এ রাষ্ট্রপতি উল্লেখ করেন, তার বর্তমান ও অবর্তমানে স্বাক্ষর নকল করে পার্টির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, দলের বিভিন্ন পদ পদবী বাগিয়ে নেয়া, ব্যাংক হিসাব জালিয়াতি এবং পারিবারিক সম্পদ, দোকানপাঠ- ব্যবসা-বাণিজ্য হাতিয়ে নেয়া ও আত্মীয়-স্বজনদের জানমাল হুমকির মুখে রয়েছে। এ কারণে তিনি মনে করেন অসুস্থতার সুযোগ নিয়ে কেউ যেন এমন অপরাধ করতে না পারে, সে বিষয়ে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দরকার।

জানতে চাইলে বনানী থানার জিডি তদন্তের দায়িত্ব এসআই শায়হান ওয়ালীউল্লাহ বলেন আজ জিডি হয়েছে এরশাদ সাহেব জিডিতে তার অভিযোগ উল্লেখ করেছেন আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।

এসব তথ্য নিশ্চিত বনানী থানার ডিউটি অফিসার এস আই মিথুন বলেন, আজ বনানী থানায় এই জিডি হয়েছে প্রাথমিক ভাবে আপনার সাধারণত যেভাবে জিডি গ্রহণ করি সেই ভাবেই জিডি গ্রহণ করা হয়েছে। ডিউটিরত এই অফিসার আরো বলেন, এছাড়া এরশাদ সাহেবের জিডির বিষয়টি আমাদের সিনিয়র কর্মকর্তারা খতিয়ে দেখবেন। তিনি জিডিতে বেশ কিছু অভিযোগ দায়ের করেছেন সেই বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে থানা কর্তৃপক্ষ আলোচনা করে এবং দায়িত্ব নিয়ে এই বিষয়টি খতিয়ে দেখবে।

আজকের পত্রিকা/কেএফ