ফেসবুকসহ বেশ কিছু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাপস ও ওয়েবসাইটকে অবৈধ পোস্ট সরিয়ে ফেলার জন্য নির্দেশ দেওয়া যাবে জানিয়ে ৩ অক্টোবর বৃহস্পতিবার আইন জারি করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সর্বোচ্চ আদালত। এ শুনানিতে বলা হয়েছে, ব্যবহারকারীরা সব পোস্ট রিপোর্ট করবে, সে অপেক্ষায় না থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোর উচিত নিজ উদ্যোগে অবৈধ পোস্ট খুঁজে মুছে ফেলা।

যদিও ফেসবুক বলছে, এই নির্দেশ বাকস্বাধীনতার পরিপন্থী। তবে প্রতিষ্ঠানটি এই শুনানির বিপক্ষে আবেদন করতে পারবে না।জানা যায়, অস্ট্রেলীয় রাজনীতিবিদ ইভা গ্লয়িশনিগ-পিয়েশ্চেক সম্পর্কে ফেসবুকে এক অবমাননাকর পোস্ট নিয়ে এই মামলার সূচনা। অস্ট্রেলিয়ার আদালত থেকে বলা হয়েছে, ওই পোস্ট ওই রাজনীতিবিদের সুনাম ক্ষুণ্ন করেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের আইন অনুযায়ী ব্যবহারকারীর অবৈধ পোস্ট যতক্ষণ না পর্যন্ত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের গোচরে আসবে, ততক্ষণ পর্যন্ত তাদের দায়ী করা যাবে না। আর গোচরে এলে সঙ্গে সঙ্গে তা সরিয়ে ফেলতে হবে।

শুনানিতে আরও বলা হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়নের কোনো দেশ যদি এমন কোনো পোস্ট খুঁজে পায়, যা ওই দেশের আদালতের নিয়ম অনুযায়ী অবৈধ, তবে ওই ওয়েবসাইট বা অ্যাপকে তা সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দিতে পারবে। এছাড়া কোনো অবৈধ পোস্টের একই বার্তার অন্যান্য পোস্ট সরিয়ে ফেলারও নির্দেশ দেওয়া যাবে এবং গোটা বিশ্ব থেকেই সে অবৈধ পোস্ট সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দেওয়া যাবে।

আজকের পত্রিকা/সিফাত