নিহত আশা বেগমের স্বজনদের আহাজারি।ছবি সংগহীত

সাভারে নিখোঁজের ১১ ঘন্টা পর সেপটিক ট্যাংকের ভিতর থেকে আশা বেগম (২৪) নামের এক গৃহবধুর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা।

২০ মে সোমবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে সাভার সদর ইউনিয়নের উত্তর কলমা এলাকার নিজ বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত কুয়ার ভিতর থেকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত আশা বেগম সাভারের কলমা এলাকার হিরু মিয়ার মেয়ে এবং কলমা উত্তরপাড়া এলাকার মাসুদুর রহমানের স্ত্রী। তার স্বামী মাসুদুর রহমান চট্রগ্রামে থাকেন।

নিহতের স্বজনরা জানান, সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে ওই গৃহবধু নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন। পরে পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন স্থানে তাকে খোঁজাখুজি করেন। একপর্যায়ে বিকেলে বাড়ির পাশের একটি সেপটিক ট্যাংকের ভেতর তার মৃতদেহ দেখতে পেয়ে সাভার ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হয়। পরে বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ফায়ারসার্ভিস কর্মীরা পরিত্যক্ত ওই কুয়ার ভিতর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেন।

সাভার ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার লিটন আহম্মেদ জানান, সকালে নিজ বাড়ির সৌচাগারে গিয়ে দুর্ঘটনা বসত সেপটিক ট্যাংকের ভেতরে পড়ে যান আশা। পরে বিকালে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা এসে সন্ধ্যায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। গভীর ট্যাংকে অক্সিজেন সরবরাহ না থাকায় তিনি মারা গিয়েছেন। মরদেহটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ এফএএম সায়েদ বলেন, ঘটনায় তার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আজকের পত্রিকা/তুহিন আহামেদ/সাভার/রাফত