আশিকুল আলম। ছবি : সংগৃহীত

নিই ইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে ‘আত্মঘাতী’ হামলা চালানোর কথা ভাবছিলেন আশিকুল আলম (২২)। তার ইচ্ছা ছিল যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যদের হত্যা করা। এসব কথা আশিকুল নিজেই জানিয়েছেন ছদ্মবেশী নিরাপত্তাকর্মীদের। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে আশিকুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আশিকুল গ্রিনকার্ডধারী ও বাংলাদেশি। থাকেন কুইন্সে।

দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়, ছদ্মবেশী নিরাপত্তাকর্মীরা প্রায় ১০ মাস ধরে আশিকুলের মনোভাব বুঝতে চেষ্টা করেছে। তার সঙ্গে কথা বলেছে পরিচয় লুকিয়ে। আশিকুল তাদের জানান, ওসামা বিন লাদেন টুইন টাওয়ারে যে ‘কথিত’ হামলা চালিয়েছে তাতে তার পূর্ণ সমর্থন আছে। সেও তেমন কিছু করতে চায়। নতুন ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে রকেট হামলা চালাতে চায়। গুলি করে সরকারি কর্মকর্তা ও পুলিশ হত্যা করতে চায়। তাই হামলার উদ্দেশে অবৈধ অস্ত্র কিনতে গেলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

নিউ ইয়র্কের ইস্টার্ন ডিস্ট্রিক্টের অ্যাটর্নি জেনারেল রিচার্ড পি ডোনাগা আশিকুলের গ্রেফতার সম্পর্কে বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সবসময় তাকে নজরদারির মধ্যে রেখেছিল যাতে সে হামলার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন না করতে পারে।

আশিকুল আলমের বিরুদ্ধে শুক্রবার ব্রুকলিনের ফেডারেল ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে অবৈধ অস্ত্র কেনার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে তার বিরুদ্ধে এখনো সন্ত্রাসী কার্যক্রমের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়নি।

ম্যাজিস্ট্রেট জাজ শেরিল এল পোলক আশিকুলকে জামিন না দিয়ে বন্দি করে রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন আদালতের কাছে। তার মতে, আশিকুল সামাজের নিরাপত্তার জন্য ভয়াবহ হুমকি।

আজকের পত্রিকা/এমএইচএস