২৫ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কুইন্সবরোর প্রধান আইনি কর্মকর্তার নির্বাচনের ভোট। ছবি : সংগৃহীত

ভাষাগত সমস্যার কারণে অভিবাসী সমাজের অনেকেই ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন বলে অভিমত জানিয়েছেন নিউ ইয়র্কের কুইন্স কাউন্টির ডিস্ট্রিক্ট আ্যাটর্নি পদে অংশ নিতে যাওয়া প্রার্থীরা।

নিউ ইয়র্কের স্থানীয় সময় ৫ মে রবিবার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসে বেলজিনো পার্টি হলে অনুষ্ঠিত টাউন হল সভায় অংশ নেন ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি প্রার্থী মেলিন্ডা কাটজ, টিফানি স্যাবন, ররি ল্যাঙ্কম্যান, গ্রেগরি ল্যাসাক, বেটি লুগো, হোযে নিভেস এবং মিনা মালিক। সেখানেই এই অভিমত জানানোর পাশাপাশি তারা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ‘ধর্মীয়, জাতিগত এবং বর্ণ বিদ্বেষমূলক হামলা নির্ণয়ে পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণ অব্যাহত রয়েছে। জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের ভেতরে নামাজরত মুসলিমদের ওপর হামলার ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া দুর্বৃত্তকে হেইট ক্রাইমের অপরাধী সাব্যস্ত না করায় উগ্রপন্থিরা আস্কারা পেয়ে যাচ্ছে’।

অভিবাসীদের গড়া নিউ ইয়র্ক সিটির সবচেয়ে বেশি ভাষা-ভাষী মানুষের বরো কুইন্স ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি নির্বাচনের ৭ প্রার্থীই অঙ্গীকার করেন যে, ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি হিসেবে জয়ী হলে এমন পরিস্থিতির অবসান ঘটানো হবে। বিচার নিয়ে প্রহসন চলতে দেওয়া হবে না কিংবা মামলার অভিযোগ গঠনেও পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণের অবকাশ থাকবে না। জাতিগত অথবা ধর্মীয় কারণে বৈষম্যের শিকার যেন কেউ না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা হবে।

অভিবাসনের মর্যাদাহীনদের মধ্যে যারা অন্য কোনও অপরাধ করেননি তাদের সুরক্ষায় যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও আশ্বস্ত করেন প্রার্থীরা। তারা কুইন্স বরোতে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘ইমিগ্রেশন অ্যান্ড কাস্টমস এনফোর্সমেন্ট’ (আইস) আদালত চত্বরে নিষিদ্ধ করা হবে বলে ঘোষণা দেন। জোর করে আইসের এজেন্টরা যদি আদালত প্রাঙ্গণে প্রবেশ করে তাহলে গ্রেফতার করা হবে বলেও হুশিয়ারি দেন প্রার্থীরা।

কুইন্সের মুসলিম সম্প্রদায়ের মতো জুইশ, খ্রিস্টান, হিন্দু, বৌদ্ধ সকলের নিরাপত্তায় গৃহীত পদক্ষেপ জোরদার করা হবে। ২৫ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বরোর প্রধান আইনি কর্মকর্তার নির্বাচনের ভোট।

আজকের পত্রিকা/বিএফকে/এমএইচএস