প্রত্যেক ব্যক্তি অতীত থেকে সরে যাওয়ার জন্য সময় নেয়। ছবি: সংগৃহীত

ভালোবাসা এবং ব্রেকআপের বিষয়গুলি সবসময় জটিল। প্রত্যেক ব্যক্তি অতীত থেকে সরে যাওয়ার জন্য সময় নেয়। এ বিষয়ক বিভিন্ন গবেষণা নিশ্চিত করে যে ব্রেকআপ পুরুষ এবং নারীকে আলাদাভাবে প্রভাবিত করে এবং উভয়ই এই পরিস্থিতির সাথে মোকাবিলা করার বিভিন্ন উপায় বের করে নেয়।

নারীরা ব্রেকআপের পরে অনেক বেশি মানসিক এবং শারীরিক ব্যথা অনুভব করেন, কিন্তু এই ব্যথা দ্রুত চলেও যায়। এই গবেষণা ইভোলিউশনারি বিহারিয়াল সায়েন্সেস জার্নালে প্রকাশিত হয়। বিংহ্যামটন ইউনিভার্সিটি এবং ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের গবেষকরা ৯৬ টি দেশের ৫,৭০৫ জন অংশগ্রহণকারীদের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন এবং তাদের এক থেকে দশ স্কেলের মধ্যে শারীরিক ও মানসিক বিষণ্ণতা নির্ধারণের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

পুরুষরা নারীদের চেয়ে বেশি সময় নেয় বিষণ্ণতা কাটাতে এবং এগিয়ে যাওয়ার জন্য সংগ্রাম করে। ছবি: সংগৃহীত

গবেষণায় দেখা গেছে, ব্রেকআপের কারণে নারীরা মানসিকভাবে এবং শারীরিকভাবে নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত হন। নারী অংশগ্রহণকারীদের ‘মানসিক যন্ত্রণা’ ৬.৮৪ রেট দেওয়া হয়েছে এবং পুরুষের জন্য এই সংখ্যা ৬.৫৮ । এছাড়া নারীদের ‘শারীরিক যন্ত্রণা’ গড়ে ৪.২১ এবং পুরুষের ৩.৭৫।

যদিও নারীরা ব্রেকআপের পরে মানসিক এবং শারীরিক যন্ত্রণা বেশি ভোগ করেন, তবে তারা দ্রুতই এই বিষণ্ণতা দূর করতে পারেন এবং এই অভিজ্ঞতা থেকে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠেন। তবে পুরুষদের ক্ষেত্রে ভিন্ন রূপ দেখা যায়। গবেষণায় বলা হয়েছে, পুরুষরা এ সময়ে অ্যালকোহলিক বা মাদকদ্রব্যের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়েন।

গবেষণায় দেখা যায়, পুরুষরা নারীদের চেয়ে বেশি সময় নেয় বিষণ্ণতা কাটাতে এবং তারা ভবিষ্যতে এগিয়ে যাওয়ার জন্য সংগ্রাম করেন। গবেষকরা দেখেছেন, অনেক পুরুষ অংশগ্রহণকারী পিআরজিতে (পোস্ট রিলেশন গ্রিফ) ভুগেন।

আজকের পত্রিকা/রিয়া/সিফাত