মাহমুদ উল্লাহ্‌
বিজনেস করেসপন্ডেন্ট

সেশন। ছবি: সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্প

দেশের অর্থনীতিতে নারী উদ্যোক্তাদের অবদান বিশেষ জায়গা দখল করে আছে। এই উদ্যোক্তারা সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্প মাধ্যেমে একে অপরের মধ্যে একটা বড় নেটওয়ার্ক তৈরি করছে। এই সব এগিয়ে চলা সাহসী নারীদের আরও এগিয়ে নিতে নতুন উদ্যোগ নিয়েছে ইউ কে ডিপার্টমেন্ট অফ ইন্টারন্যাশনাল ডিভলপমেন্ট এবং ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টার। বাংলাদেশসহ আরও কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে তাদের সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্প কাজ করছে দুই বছর হলো। সেই প্রচেষ্টার অংশ হিসেবেই তারা ১৭ জুলাই বুধবার একটি বিশেষ সেশনের আয়োজন করে রাজধানীর পাঁচ তারকা হোটেল প্যান প্যাসেফিক সোনারগাঁও।

এতে অংশ নিয়েছেন ১৬টিরও বেশি প্রাইভেট সেক্টর থেকে আসা প্রতিযোগী এবং ১০ জন সপ্রতিষ্ঠিত নারী উদ্যোক্তারা।

সেশনে অংশগ্রহণকারীগণ।

উক্ত সেশনে সি ট্রেড ইন কমোনওয়েলথ প্রকল্পের প্রধান সায়মন ব্যালফ বলেন, ‘এই প্রকল্পটির উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের বাজারে আরও কর্মক্ষেত্র তৈরী করা ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়ানো। সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্পটি ইতোমধ্যেই ৩৩৬ জন নারী উদ্যোক্তাদের সাথে কাজ করেছে। তাদের মধ্যে ৫৮ জন আইটি ব্যবসা এবং ২৭৮ জন কাপড়ের ব্যবসার সাথে জড়িত। আমরা আরও উৎসাহিত করতে চাই নারীদের।’

উক্ত সেশনে প্রধান আতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সি ট্রেড ইন কমোনওয়েলথ প্রকল্পের প্রধান সায়মন ব্যালফ । ওমেন এন্ড ট্রেড প্রোগামের কান্ট্রি কো অর্ডিনেটর বাংলাদেশ তানভীর আহমেদ, এ্যাসসিয়েট এক্সপার্ট মিশেল ক্রিস্টি,ট্রেড প্রেফারেন্স পলিসি এ্যাডভাইজার ইউ কে এইড ক্রিস্টিয়ানা টইপেল, রিচার্ড বেলিষ্টোন ছাড়াও ব্যাংকিক, গার্মেন্ট, ট্রেক্সটাইল, আইসিটিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

নারীদের নিয়ে এই আয়োজনের সার্বিক সহযোগী হিসেবে কাজ করেছে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ সফটওয়্যার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিস (বেসিস)।

আই টি সি কী?

ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টার (আই টি সি), ওয়ার্ল্ড ট্রেড অরগানাইজেশন ও ইউনাইটেড ন্যাশনের একটি যৌথ এজেন্সি। আই টি সি ক্ষুদ্র এবং মাঝারি উন্নয়নের জন্য নেয়া উদ্যোগগুলোকে প্রতিযোগীতামূলক বাজারে টিকে থাকার জন্য সাহায্য করে। এছাড়াও স্থিতিশীল অর্থনৈতিক উন্নয়নে সাহায্য করে এবং এস ডি জির লক্ষ্যমাত্রা নিয়ন্ত্রন করে।

আজকের পত্রিকা/এমইউ