অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্র ফজর রহমান সাব্বিরকে (১৩) উদ্ধার। ছবি: সংগৃহীত

প্রায় আটমাস আগে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার আমিরগঞ্জ থেকে অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্র ফজর রহমান সাব্বিরকে (১৩) উদ্ধার করেছে নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। অপহরণের পর তাকে ক্রয় করে জোড়পূর্বক শ্রমিকের কাজ করানোর দায়ে খোকন আলী (২৭) নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।

১৫ মে বুধবার দুপুরে নরসিংদী জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয় সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে এসব কথা জানান পুলিশ সুপার মিরাজউদ্দিন আহমেদ। সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার জানান, বিগত আট মাস আগে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার নলবাটা গ্রামের মৃত আলমগীরের ছেলে মাদ্রাসা ছাত্র ফজর রহমান সাব্বিরকে আমিরগঞ্জ রেল ষ্টেশন থেকে প্রলোভন দেখিয়ে ট্রেনে করে চট্টগ্রাম নিয়ে যায়। সেখান থেকে নাজিম নামে এক লোক মাদ্রাসা ছাত্র সাব্বিরকে রাঙ্গামাটি জেলার বরকল এলাকায় নিয়ে আসামী খোকনের নিকট বিক্রি করে দেয়।

অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্রের মায়ের আবেদনে, ১৪ মে মঙ্গলবার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক জাকারিয়া আলম রাঙ্গামাটি জেলার কোতায়ালী থানা এলাকা থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করে আসামী খোকনকে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারের পর আসামী খোকন জানায়, নাজিম নামে একজনের কাছ থেকে মাদ্রাসা ছাত্র সাব্বিরকে টাকার বিনিময়ে কিনে নেয় সে এবং রাঙ্গামাটির বরকল থানার কুসুমতলী এলাকায় সাব্বিরকে দিয়ে জোরপুর্বক মাছ ধরানোর কাজ করানো হতো।

এছাড়া সেখানে এ ধরনের আরও অনেক ছেলেকে দিয়ে জোর পুর্বক মাছ ধরানোর কাজ করানো হচ্ছে বলেও তথ্য দেয় খোকন।গ্রেফতারকৃত খোকন আলী রাঙ্গামাটি জেলার বরকল থানার কুরকটিছড়ি এলাকার মৃত আক্কাস আলীর ছেলে।

আজকের পত্রিকা/মাইনউদ্দিন সরকার, নরসিংদী/আরকে/শায়েল/সিফাত