শিশুর নখের যত্ন। ছবি : সংগৃহীত

শিশুদের হাত ও পায়ের নখ দ্রুত বড় হয়। আর বড় হবার সাথে সাথে বাচ্চাদের নখগুলো হয় অত্যন্ত ধারালো। তাই নিয়মিত নখ কাটা এবং হাত পা পরিষ্কার রাখতে না পারলে বাচ্চা নিজেকে নিজেই খামচি দিয়ে ক্ষত তৈরি করে ফেলতে পারে, যা থেকে ইনফেকশন হতে পারে সহজেই।

নতুন বাবা মায়েদের ক্ষেত্রে ছোট ছোট আঙুল থেকে সাবধানে নখ কাটা বেশ চিন্তার ব্যাপার হয়ে দাড়ায়। বিশেষ করে নবজাতক যদি জেগে থাকে এবং নখ কাটা নিয়ে মোটেই খুশি না থাকে। এ সময় তাড়াহুড়ো করবেন না, এতে ত্বক কেটে রক্তপাত হতে পারে। সুতির মিটেন বা হাতমোজা পরিয়ে বাবুর শরীরে খামচি দেয়া হয়তো ঠেকালেন কিছু দিনের জন্য। কিন্তু নখ তো কাটতেই হবে। কিছু উপায় রয়েছে যা মেনে সহজেই বাচ্চার নখের পরিচর্যা করতে পারেন।

নেইল ক্লিপার আর কাঁচি

বাচ্চার আঙ্গুল আপনার দুই আঙ্গুল দিয়ে ধরে সাবধানে ক্লিপার আর কাঁচি দিয়ে নখ কাটতে পারেন। সবচেয়ে ভালো হয় যখন সে ঘুমিয়ে থাকে তখন করলে।

ফাইল করা

নখ যখনও পুরোপুরি শক্ত হয়নি কিন্তু ধার অনেক, তখন ব্যবহার করতে পারেন নেইল ফাইল। নখ কাটলে বা কাটতে না পারলেও, নখ ঘষে ধারালো ভাবটা কমিয়ে দিতে পারেন।

অন্যান্য উপায়

একেবারে শুরুতে বাচ্চার নখ থাকে একদম পাতলা, চামড়ার মতো। খুব সাবধানে আঙ্গুল দিয়েও কিন্তু সেই পাতলা নখের বাড়তি অংশটা ছিড়ে ফেলা যায়। তবে এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে যেন বেশি ছিড়ে না ফেলেন।

ট্রিমিং এর উপায়

শিশুর নখের ট্রিমিং। ছবি : সংগৃহীত

শিশুর হাতের নখ সুন্দর করে গোল করে কেটে দিলেও পায়ের নখ কাটার সময় সোজা কাটবেন। পায়ের নখের দুইপাশে বেশী করে কাটতে গেলে ইনগ্রোন নেইল বা নখ বেড়ে যেতে পারে ত্বকের ভেতরের দিকেও। তবে খুব ভালো হয় যদি ট্রিম করার সময় সাথে কাউকে রাখেন। সেক্ষেত্রে আপনার পক্ষে সাবধানে ট্রিম করা সহজ হবে।

হেয়ার টুর্নিকেট সিনড্রোম

হেয়ার টুর্নিকেট সিনড্রোম। ছবি : সংগৃহীত

নখ কাটা বা ট্রিম করার সময়ে খেয়াল করুন যে শিশুর আঙুলে কোন চুল জড়িয়ে আছে কিনা। এতে রক্ত চলাচল বন্ধ হয়ে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে বা বাবুর আঙুলে জড়িয়ে আঙুল কেটে আলাদা হয়েও যেতে পারে।

সাবধানতা

নখ কাটার পাশাপাশি শিশুর নখে কোনো দাগ আছে কি না ভালোভাবে খেয়াল করুন। নখে দাগ থাকার একটা কারণ হতে পারে শিশুর আয়রন ডেফিসিয়েন্সি বা দেহে লৌহের পরিমাণ কমে যাওয়া। তবে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কিছু না খাওয়ানোই ভালো। শিশুদের নখ খুবই পাতলা হয় আর মাঝে মাঝে দেখে মনে হয় ত্বকের ভিতর থেকে সেগুলো বের হয়েছে। এটা নিয়ে ভাবনার কিছু নেই। তবে যখন দেখবেন নখের চারপাশে লাল হয়ে শক্ত হয়ে গেছে, তাহলে কিন্তু ইনফেকশনের ভয় আছে। তখন ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন।

আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/