বিয়ে। ছবি: সংগৃহীত

সাধারণত বিয়ের পর মোটামুটি সবার জীবনেই শারীরিক এবং মানসিক নানা পরিবর্তন আসে। এক পরিবেশ থেকে অন্য পরিবেশে যাওয়া, অন্যরকম জীবনযাত্রা, হরমোনের ওঠানামা, খাদ্যাভাসে পরিবর্তন ইত্যাদি অনেক কিছুই এই জন্য দায়ী। এছাড়াও দীর্ঘদিন পর দুজনেরই যখন ঠিকানা বদল হয় তখন একটা মানসিক পরিবর্তনও আসে। মূলত হরমোনের পরিবর্তনই এর মূল কারণ।

তবে বিয়ের পর শরীর ফিট রাখাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়ায়। সেজন্য নির্দিষ্ট কিছু খাদ্য তালিকা মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে থাকেন পুষ্টিবিদ এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। বিবাহিত জীবন উপভোগ করার পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রে শারীরিক এবং মানসিকভাবে সর্বোচ্চটা দেওয়ার জন্যে ফিট থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ শরীর ভালো না থাকলে নিজেদের মধ্যে ঠিক বোঝাপড়া থাকবে না। তাতে সম্পর্ক খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়াও ফিটনেস না থাকলে এর প্রভাব পড়ে শারীরিক সম্পর্কেও। তাহলে বিয়ের পর কী কী খাবেন তা জেনে রাখা জরুরী। চলুন জেনে নিই, সেইসব খাবার সম্পর্কে-

ডিম

শরীরের দুর্বলতা, ক্লান্তি দূর করতে ডিমের বিকল্প নেই। ডিমে বিদ্যমান প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন আপনার দৈনিক পুষ্টি চাহিদা মেটাতে সক্ষম। তাই আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ডিম অবশ্যই রাখবেন। পারলে ডিম সেদ্ধ করে খান।

দুধ

সকলেই ফ্যাট জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে চান। কেউ কেউ মনে করেন দুধ মোটেই শরীরের পক্ষে ভালো নয়। এসব ভুল তথ্য বিশ্বাস না করে প্রতিদিন দুধ খান। এতে প্রয়োজনীয় খনিজ, ভিটামিন থাকে।

মধু
সকালে গরম জলের সঙ্গে পাতিলেবুর রস আর মধু খান। এতে ত্বকও ভালো থাকবে।

রসুন

রসুন ক্লান্তি দূর করে। যৌন উদ্দীপনা ধরে রাখে। এছাড়াও শরীরে রক্ত প্রবাহ ঠিক রাখে।

কফি

কফির মধ্যে থাকা ক্যাফাইন শারীরিক মিলনের ইচ্ছা জাগায়। তাই কফি অবশ্যই খান। ব্ল্যাক কফি খেতে পারলে আরও ভালো।

চকোলেট

চকোলেট মানেই ভালোবাসা। আর প্রেম ও সেক্সের সঙ্গে চকলেটের আকর্ষণীয় এক সম্পর্ক রয়েছে। তাই চকলেট খান এবং ভালোবেসে যান।

কলা

কলার মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ, বি, সি ও পটাশিয়াম। ভিটামিন বি ও পটাশিয়াম মানবদেহের যৌনরস উৎপাদন বাড়ায়। আর কলায় রয়েছে ব্রোমেলিয়ানও। যা শরীরের টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়াতেও সহায়ক। আর সর্বোপরি কলায় বিদ্যমান শর্করা দেহের শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। ফলে দীর্ঘ সময় ধরে দৈহিক মিলনে লিপ্ত হলেও আপনার ক্লান্তি আসবে না।

আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/সিফাত