কাছিম অবমুক্ত করা হচ্ছে।

নওগাঁর মহাদেবপুরে একটি গ্রামের পুকুর থেকে বিরল প্রজাতির কাছিম উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী। ২৫ এপ্রিল বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলা হাসানপুর পাখি কলোনির একটি পুকুরে কাছিমটি অবমুক্ত করা হয়।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুর উপজেলার চান্দাশ গ্রামের শহীদুল ইসলামের পুকুর থেকে কাছিমটি উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চান্দাশ গ্রামের শহীদুল ইসলামের পুকুরে জাল (খেপলা জাল) দিয়ে মাছ ধরছিলেন এক যুবক। এ সময় ওই জালে ধরা পড়েছিল কাছিমটি। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে একনজর দেখার জন্য পুকুর পাড়ে ভিড় করে স্থানীয়রা। কাছিমটি বিক্রয় করা হবে এমন সংবাদ পায় স্থানীয় হাবিবুর নামে এক যুবক।

এ সময় তিনি মহাদেবপুর উপজেলা প্রাণ ও প্রকৃতি সংগঠনের সভাপতি কাজী নাজমুল হোসেন বিষয়টি অবগত করেন। পরে বিষয়টি চান্দাশ ইউপির চেয়ারম্যান রিপন হোসেনকে অবগত করা হলে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে কাছিমটি উদ্ধার করে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসেন।

কাছিমটি অবমুক্তের সময় উপস্থিত ছিলেন, মহাদেবপুর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা পলাশ চন্দ্র দেবনাথ, হাসানপুর পাখি কলোনীর সভাপতি পাখি ও প্রধানমন্ত্রী কাছে বঙ্গবন্ধু অ্যাওয়ার্ড ফর ওয়াইল্ড লাইফ কনজারভেশন পুরস্কারপ্রাপ্ত ইউনুজার রহমান হেফজুল, জাতীয় কৃষি পদকপ্রাপ্ত সাদা মনের মানুষ শামসুদ্দীন মন্ডল, পাখিপ্রেমী মুনসুর সরকার, মহাদেবপুর উপজেলা প্রাণ ও প্রকৃতি সংগঠনের সভাপতি কাজী নাজমুল হোসেন এবং হাসানপুর পাখি কলোনী গ্রামের স্থানীয়রা।

মহাদেবপুর উপজেলা প্রাণ ও প্রকৃতি সংগঠনের সভাপতি কাজী নাজমুল হোসেন বলেন, ওই পুকুরটিতে পুকুরে মালিক মাছ চাষ করতেন। গ্রামের মানুষরা গোসলসহ থালাবাসন পরিষ্কার করতেন। বন্যার সময় পুকুরটি ডুবে যেত। ধারণা করা হচ্ছে বন্যার সময় কাছিমটি পুকুরে প্রবেশ করেছে। আর এটি এখন বিরল প্রজাতির প্রাণী।

মাহবুবুজ্জামান সেতু, নওগাঁ/জেবি