দৌলতপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলায় কলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে এক খামারীর ১৭ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মানববন্ধন করেছে ক্ষতিগ্রস্থ্য খামারী ও স্থানীয় লোকজন। মঙ্গলবার মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার তালুকনগর এলাকায় ঘন্টাব্যাপি এ মানববন্ধন হয়।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, খামারী মো. রুবেল মিয়া, ইউপি মেম্বার আমজাদ হোসেন, মোছা: হাসিনা বেগম,রায়হান হামিদ হৃদয়, সাবেক ইউপি মেম্বার সোরহাব, কলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম, যুবলীগ নেতা আব্দুস সাত্তার, জেরিন ফারজানা রিয়া প্রমূখসহ এলাকাবাসী।

এসময় ভুক্তভোগী পরিবার অতি দ্রুত তার ১৭ লক্ষ টাকা ফেরত চান ও এলাকাবাসী অনিয়ম-দূর্ণীতির বিচার দাবি করেন।

উল্লেখ্য, ৪ মাস আগে দৌলতপুরের কলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন এমএ সোহাগের খামার থেকে ১৪টি গরু ১৭ লক্ষ ৫০ হাজার টাকায় ক্রয় করেন। মাত্র ৫০ হাজার টাকা নগদ পরিশোধ করে ১৭ লক্ষ টাকা বাকি রাখেন। ঈদের পরের দিন বকেয়া ১৭ লক্ষ টাকা পরিশোধ করবেন শর্তে গরুগুলো নিয়ে যান। একটি চেক দিলেও সেই টাকা ব্যাংকে না থাকায় তা উত্তোলন করতে পারেনি। পরবর্তীতে টাকা চাইলে সে ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে নানা ধরনের হুমকি-ধামকি প্রদান করে। এছাড়া বিভিন্ন প্রকল্প থেকে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী। সম্প্রতি তিনি দূর্ণীতির দায়ে বরখাস্তও হন।

এব্যাপারের কলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জানান, গরু ক্রয়ের বাকী ১৭ লক্ষ টাকার মধ্যে তিনি ১০ লক্ষ টাকার চেক দিয়েছেন। কিছুদিনের মধ্যে ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করতে পারবেন। সেই সাথে তিনি জানান তাকে বরখাস্ত করা হয়েছিল ঠিকই তবে হাইকোর্টের রায়ে তিনি বর্তমানে দায়িত্ব পালন করছেন।

শাহজাহান বিশ্বাস/মানিকগঞ্জ